Photo 24.12.2015আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ ২৪ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার জন উদ্যোগ, গাইবান্ধার আয়োজনে স্থানীয়  গাইবান্ধা পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে ‘নির্বাচন: ভোটার হিসেবে জাতিগত ও ধর্মীয় সংখ্যালঘু নাগরিকের অংশগ্রহণ’  শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। জনউদ্যোগ গাইবান্ধা জেলার আহবায়ক অধ্যাপক জহুরুল কাইয়ুম এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ পূজা উদ্্যাপন পরিষদের সভাপতি রণজিৎ বকশী সূর্য্য, বাংলাদেশ মেডিকেল এ্যাসোসিয়েশন গাইবান্ধা জেলার সভাপতি ডা. শহীদুজ্জামান হারুন, জেলা বারের সাধারণ সম্পাদক আহসানুল করিম লাছু, পরিবেশ আন্দোলন-গাইবান্ধার সভাপতি ওয়াজিউর রহমান রাফেল, আদিবাসী নেতা গৌরচন্দ্র পাহাড়ী, দলিত নেতা রাজেশ বাশফোর, সন্তোষ বাশফোর, মানবাধিকার কর্মী ও সাংবাদিক দীপক পাল, জেলা জাসদ সাধারণ সম্পাদক গোলাম মারুফ মনা, তেল-গ্যাস রক্ষা জাতীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল হক জনি, জনউদ্যোগের সদস্য সচিব প্রবীর চক্রবতী, সচেতন নাগরিক কমিটি সনাকের সহ-সভাপতি শিরিন আক্তার, এসকেএস ফাউন্ডেশনের কো-অর্ডিনেটর ইসমাইল হোসেন, শিক্ষক ও সাংবাদিক উজ্জ্বল চক্রবর্তী, উদীচীর সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল গনি রিজন, জেলা সুজনের সাধারণ সম্পাদক অশোক সাহা প্রমুখ। আলোচকবৃন্দ বক্তব্যে বলেন যে, আদিবাসী, সংখ্যালঘু ও দলিত জনগোষ্ঠীর প্রতি এক ধরনের বৈষম্য আমাদের চেনা। কিন্তু নির্বাচন এলে এই চেনা বঞ্চনার চিত্রে নির্যাতনের নতুন মাত্রা যুক্ত হয়। নির্বাচনকালীন ও নির্বাচন পরবর্তী সময় সংখ্যালঘু ও আদিবাসী জনগোষ্ঠীর ওপরে ভয়ানক নির্যাতন চালানো হয়। তাদের বাড়িঘর, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও উপাসনালয়ে হামলা করা হয়। হত্যাও করা হয়। এরকম পরিস্থিতিতে অনেক পরিবারকে ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়ে থাকতে হয়, কারো-বা সপরিবারে দেশ ছাড়তে হয়। নির্বাচনকালে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভালো রাখতে সরকারকে কার্যকর উদ্যোগ নিতে হবে। তাছাড়া, নাগরিক সমাজ, গণমাধ্যম, রাজনৈতিক দল, নারী ও মানবাধিকার সংগঠন, বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা, নির্বাচন পর্যবেক্ষক সংস্থাসমূহ, আন্তর্জাতিক সংস্থা সর্বোপরি নির্বাচন কমিশনসহ সবারই এখন এ নিয়ে সোচ্চার হওয়া দরকার। বক্তরা গাইবান্ধা পৌরসভায় সংখ্যালঘু প্রার্থী ও ভোটারদেরকে হুমকি প্রদান করা হচ্ছে মর্মে অভিযোগ করেন এবং এই সব প্রার্থী ও ভোটারদেরকে নিরাপত্তা প্রদানের জন্য প্রশাসনের প্রতি জোর দাবী জানানো হয়। ছবি সংযুক্ত
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য