দিনাজপুরে সাসটেইনেবল ইউনিভার্সাল সল্ট আয়োডাইজেশন শীর্ষক কর্মশালাডেক্স রিপোর্ট॥ বুদ্ধিদীপ্ত জাতি গঠন, নারী ও শিশুর পুষ্টি এবং জনস্বাস্থ্যের উন্নয়নে আয়োডিনযুক্ত লবণ গ্রহণে গণসচেতনতা সৃষ্টির কর্মকৌশল নির্ধারণের উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক)- এর সর্বজনীন আয়োডিনযুুক্ত লবণ তৈরী কার্যক্রমের মাধ্যমে আয়োডিন ঘাটতি পূরণ (সিআইডিডি) প্রকল্প এবং মাইক্রোনিউট্রিয়েন্ট ইনিশিয়েটিভ (এমআই)-এর যৌথ উদ্যোগে অদ্য ১৩ ডিসেম্বর ২০১৫ তারিখ “পলিসি ডায়ালগ টুওয়ার্ডস সাসটেইনেবল ইউনিভার্সাল সল্ট আয়োডাইজেশন” শীর্ষক দিনব্যাপী এক কর্মশালা দিনাজপুর পর্যটন  মোটেল সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত কর্মশালায় প্রধান অতিথি ও মূল প্রবন্ধ উপস্থাপক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক ডঃ এ. কে. এম. নুর-উন-নবী, উপাচার্য, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, রংপুর। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব পতিত পাবন বৈদ্য, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সম্মানিত যুগ্ম-সচিব ও পরিচালক (প্রকল্প), বিসিক ও জনাব অমলেন্দু বিশ্বাস, সিভিল সার্জন, দিনাজপুর। দিনাজপুর জেলার সরকারি/বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি, ব্যবসায়ী ও এনজিও প্রতিনিধিদের অংশগ্রহণে কর্মশালার উদ্বোধনী পর্বে সভাপতিত্ব করেন জনাব মোঃ তৌফিক ইমাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব), দিনাজপুর।

কর্মশালায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনকালে ডঃ নুর-উন-নবী বলেন “বুদ্ধিদীপ্ত জাতি ও আলোকিত প্রজন্ম গঠনের জন্য  সমাজের সকল স্তরের জনগনের আয়োডিনযুক্ত লবণ গ্রহণের প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম”। এছাড়াও বিজ্ঞ আলোচকদের মধ্যে ছিলেন সহযোগী অধ্যাপক ডঃ সাজ্জাদ হোসেন, হাজি দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, দিনাজপুর, ইঞ্জিনিয়ার এস. এন পাল, চীফ ইঞ্জিনিয়ার, বিসিক এবং আলতাফ হোসেন, আঞ্চলিক পরিচালক, রাজশাহী। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতায় দিনাজপুরে আয়োডিন বিষয়ে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার অঙ্গীকার করেন।

নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের কর্মকান্ডের উপর বক্তব্য রাখেন সিআইডিডি প্রকল্প পরিচালক মো: আবু জামিল এবং এম আই বাংলাদেশ এর ন্যাশনাল প্রোগ্রাম অফিসার ইঞ্জিনিয়ার আশেক মাহফুজ। কর্মশালাটি পরিচালনায় সহায়তা করেন ক্যাপাসিটি বিল্ডিং সার্ভিস গ্রুপ (সিবিএসজি)। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন বিসিক দিনাজপুরের ডিজিএম হাসনাত হোসেন।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য