৩. প্যারিসে জলবায়ু চুক্তির খসড়ায় ‘সম্মতি’আন্তর্জাতিক ডেস্ক: জলবায়ু ইস্যুতে চুক্তির খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিলেন বিশ্বনেতারা। প্যারিস জলবায়ু সম্মেলনের বর্ধিত দিনে টানা ১৬ ঘণ্টার আলোচনা শেষে এই চুক্তিতে সম্মতি দেওয়া হয়। শনিবার সম্মেলনের সংগঠকদের বরাতে এ খবর জানিয়েছে বিবিসি।ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ল্যরাঁ ফ্যাবিয়াসের দপ্তরের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, গ্রিনিচ মান সময় সাড়ে ১০টায় খসড়াটি সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী মন্ত্রীদের কাছে উপস্থাপন করা হতে পারে।কর্মকর্তা অরো বলেন, “উপস্থাপন করার জন্য আমরা একটি খসড়া পেয়েছি।”এই খসড়াটি এখন জাতিসংঘের ছয়টি দাপ্তরিক ভাষায় অনুবাদ করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

একটি সার্থক চুক্তির আশায় গত মাসের ৩০ নভেম্বর দেড় শতাধিক দেশের অংশগ্রহণে শুরু হয় প্যারিস জলবায়ু সম্মেলন। টানা ১৩ দিনের আলোচনা পর্যালোচনার পর চুক্তি সইয়ে বিশ্বনেতাদের সম্মতি মিললেও এর শর্তগুলো নিয়ে বিস্তারিত জানানো হয়নি। তবে, চুক্তি সইয়ের সম্মতির খবর প্রচারের আগে, সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে সম্মেলনের সভাপতি লঁরা ফ্যাবিয়ুস স্বীকার করেছিলেন, সম্ভাব্য চুক্তিতে ধনী-দেশগুলোর শর্ত নিয়ে আপত্তি আছে পর্যবেক্ষকদের।

জলবায়ু চুক্তির সর্বশেষ এই সংস্করণে অনেকগুলো ইস্যুতে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে বলে জানা গেছে। সম্মেলনে বিরোধী পক্ষগুলোর মধ্যে সত্যিকার সমঝোতার প্রমাণ পাওয়া গেছে বলে প্যারিস থেকে জানিয়েছেন বিবিসির প্রতিনিধি ম্যাট ম্যাকগ্রাথ।তিনি জানান, সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী দেশগুলো বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধি ২ সেন্টিগ্রেডের কম রাখার বিষয়টি সমর্থন করলেও তাপমাত্রা যেন ১ দশমিক ৫ সেন্টিগ্রেডের উপরে বৃদ্ধি না পায় তার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করার বিষয়ে সম্মত হয়।

৩০ নভেম্বর থেকে প্যারিসে জাতিসংঘের উদ্যোগে জলবায়ু সম্মেলন শুরু হয়। ১১ ডিসেম্বর সম্মেলন শেষ হওয়ার কথা ছিল। এটি ছিল বিভিন্ন পক্ষের অংশগ্রহণে সম্মেলনের ২১তম পর্ব যাকে সংক্ষেপে সিওপি২১ (কনফারেন্স অব দ্য পার্টিস, টোয়েন্টিওয়ান) বলা হচ্ছে। এবারের সম্মেলনে বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধির ফলে জলবায়ু পরিবর্তনের বিষয়ে আলোচনার জন্য বিশ্বের ১৯০টির বেশি দেশ অংশগ্রহণ করে। চীনা প্রতিনিধি দলের প্রধান শি জেনহুয়া বলেন, ‘আজ আমরা সম্পূর্ণ গঠনমূলক ও উদারতা প্রদর্শন করেছি। যাতে করে, সম্মেলনে অংশ নেয়া সকল পক্ষ মিলেমিশে কাজ করতে পারি।’আর জলবায়ু রক্ষায় বিশ্বনেতাদের টালবাহানার প্রতিবাদে রাস্তায় নেমেছেন এদের অনেকেই। বিশ্বকে বাসযোগ্য করতে এখনই কার্যকর পদক্ষেপ নিতে জোর দাবি জানিয়ে আসছেন পরিবেশবাদীরা।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য