কাহারোলের ইসকন মন্দিরে বোমা হামলাকারীর পরিচয় জানা গেছেদিনাজপুরের কাহারোলের ১নং দাবর ইউনিয়নের জয়নন্দ নিলাহার কৃষ্ণ ভাবনা মৃত সংঘ (ইস্কন) মন্দিরে বোমা হামলায় হামলাকারি আটক শরিফুল ইসলাম (২০) বগুড়ার একটি বেসরকারি পলিটেকনিক্যাল কলেজের ছাত্র।

ঘটনাস্থল থেকেই শরিফুলকে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেন এলাকাবাসী।  শরিফুল ইসলাম গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী উপজেলার শওকত আলীর ছেলে।

এদিকে গুলিবিদ্ধ দুজনের মধ্যে কাহারোল উপজেলার জয়নন্দ গ্রামের বিরেন্দ্র রায়ের ছেলে মিঠুন চন্দ্র রায় (২২) রাতেই রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।
কাহারোলে ধর্মসভায় দূবৃত্তদের ককটেল ও গুলিবর্ষন ঘটনাস্থল পরিদর্শন
এদিকে রাতেই জয়নন্দ হাটের জগন্নাথ ইসকন মন্দির বোমা বিষ্ফোরন ও গুলি বর্ষনের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি, দিনাজপুর জেলা প্রশাসক মীল খায়রুল আলম ও দিনাজপুর জেলা পুলিশ সুপার রুহুল আমিন।

গুলিবিদ্ধ দুজনের মধ্যে কাহারোল উপজেলার জয়নন্দ গ্রামের বিরেন্দ্র রায়ের ছেলে মিঠুন চন্দ্র রায়কে (২২) রাতেই রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।
দূবৃত্তদের ককটেল ও গুলিবর্ষনে আহত ২
১০ ডিসেম্বর রাতে হামলায় আহত দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রণজিৎ রায় কে দেখতে যান সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শিল গোপাল এমপি। এসময় তিনি দিনাজপুর নিউজকে বলেন, ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতার করে বিচারের মুখোমুখি করা হবে। তিনি এসময় সবাইকে শান্ত হওয়ার আহ্বান জানালে পরিস্থিতিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

কাহারোল থানার ওসি মনসুর আলী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আহতদেরকে  চিকিৎসার জন্য দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আটক শরিফুল ইসলামকে ডিবি পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

সতর্কবার্তাঃ-
উক্ত বিষয়ে রিপোর্টটির কোন অংশ সংযোজন, বিয়োজন, সংশোধন, পরিবর্তন করে ব্যবহার বা অনুমতি ব্যতিত এর কোন কন্টেন্ট ব্যবহার আইনগত অপরাধ যে কোন ধরনের কপি-পেষ্ট কঠোর ভাবে নিষিদ্ধ এবং কপিরাইট আইনে বিচার যোগ্য তবে রিপোর্টি ফেসবুকে সেয়ার করতে কোন বাধা নেই
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য