Thakurgaon mapঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোস্তাফিজুর রহমানের বিরুপ আচরণের কারণে বিজয়ের মাস ১৬ ডিসেম্বের বিজয় দিবসে প্রশাসন কর্তৃক সংবর্ধনা অনুষ্ঠান এবার বর্জনের ঘোষনা দিলেন উপজেলার মুক্তিযোদ্ধা সংসদ । বৃহঃস্প্রতিবার ৩রা ডিসেম্বর পাকহানাদার মুক্ত দিবসে আলোচনা সভায় মুক্তিযোদ্ধরা এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠান বর্জনের ঘোষনা দেয়।

উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার নগেন কুমার পাল ও ডেপুটি কমান্ডার সলেমান আলী বলেন, হরিপুর উপজেলায় কর্মরত পুর্বে সকল নির্বাহী কর্মকর্তাগণ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের প্রতিনিধিদের সাথে মতবিনিময় করে বিভিন্ন উন্নয়ন মুলক কর্মকার্ন্ডে মুক্তিযোদ্ধাদের অংশ গ্রহণের সুযোগ করে দিয়ে এবং উপজেলা বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কাজের সুপারিশ গ্রহণ করতো। কিন্তু বর্তমান ইউএনও এই উপজেলায় যোগদানের পর থেকেই মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে সম্বনয় না করে নিজের ইচ্ছে ও খেয়াল খুশিমত কর্মকান্ড করে যাচ্ছে। মুক্তিযোদ্ধাদের কোন প্রকার মূল্যায়ন করছে না। উপজেলার অবহেলিত অঞ্চল গুলোর উন্নয়ন কাজের সুপারিশ করা হলেও ইউএনও কোন সুপারিশ গ্রহণ করছে না। তাই আমরা এবার উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ আগামী ১৬ই ডিসেম্বর বিজয় দিবসে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও আমাদের সংবর্ধনা দেওয়ার কথা রয়েছে। তাই সে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান আমরা বর্জনের ঘোষনা দিয়ে এর প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোস্তাফিজুর রহমানের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, আমি তো মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে কোন সময় খারাপ আচরণ করিনি। মুক্তিযোদ্ধারা কেন যে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান বর্জন করতে তা আমি জানি না।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য