সিনেমা হলে জাতীয় সঙ্গীত বাজার সময় না দাঁড়ানোয় মুসলিম দম্পতিকে বহিষ্কারসিনেমা হলে জাতীয় সঙ্গীত বাজার সময় আসন ছেড়ে উঠে না দাঁড়ানোর অভিযোগে এক মুসলিম দম্পতিকে হল ছেড়ে বেরিয়ে যেতে বাধ্য করা হয়েছে। মুম্বাইয়ের একটি সিনেমা হলে সিনেমা শুরু হওয়ার আগে জাতীয় সঙ্গীত বাজার সময় উঠে না দাঁড়ানোয় শাস্তি হিসেবে সকলের সামনে ওই মুসলিম পরিবারকে হেনস্থা এবং নিগ্রহ করা হয়।

সিনেমা হলের এক দর্শক সমস্ত ঘটনার ভিডিয়ো রেকর্ডিং করে তা ইন্টারনেটে পোস্ট করেন ২৯ নভেম্বর। পরে তা টুইটার এবং হোয়াটসঅ্যাপেও ছড়িয়ে পড়ে।

ভিডিও সূত্রের বরাত দিয়ে বলা হয়েছে, ওই মুসলিম পরিবার যেখানে বসেছিলেন, সেখানে ২০/২৫ জন লোক তাদের ঘিরে ধরে জবাব চায় তারা কেন জাতীয় সঙ্গীত বাজার সময় উঠে দাঁড়ায় নি? তারা জাতীয় সঙ্গীতের ‘অপমান’ করেছে বলে দাবি করে ক্ষুব্ধরা। তাদের কটুক্তি এবং উষ্মার জেরে অবশেষে ওই মুসলিম পরিবারটি সিনেমা হল থেকে বেরিয়ে যেতে বাধ্য হলে দর্শকদের একাংশ হাততালি দিয়ে ওঠে।

জাতীয় সঙ্গীতের ‘অপমান’ করা হয়েছে বলে ওই মুসলিম পরিবারকে নিগ্রহ করা হলেও দেখা যাচ্ছে সুপ্রিম কোর্টের ২০০৫ সালের একটি রায়ে স্পষ্ট বলা হয়েছে, ‘জাতীয় সঙ্গীত চলার সময় সোজা হয়ে দাঁড়ানো একজন ব্যক্তির নৈতিক দায়িত্ব। কিন্তু তিনি যদি তা না করেন, তাহলেও ১৯৭১ সালের (জাতীয় সঙ্গীত অবমাননা-রোধী) আইন অনুযায়ী সেটা কোনো অপরাধ নয়। ২০০২ সালের জাতীয় পতাকা কোড-এও সোজা হয়ে না দাঁড়ানোকে অপরাধ হিসেবে উল্লেখ করা নেই।’

ওই মুসলিম পরিবারের পুরুষ সদস্যটি সোমবার এক মিডিয়া সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ‘ফিল্ম দেখার মুডে হলে গিয়েছিলাম, আচমকা এসব হয়ে গেছে। আমারই ভুল হয়েছে বলে মনে করছি।’ যদিও তাদের উপর যে দুর্ব্যবহার করা হয়েছে তা কখনই গ্রহণযোগ্য নয়।

তিনি বলেছেন, আমার সঙ্গে আমার স্ত্রী ছিল, একটি সার্বজনিক স্থানে এ ধরণের আচরণ করা অন্যায়। তার বোন, স্ত্রী, মেয়েও বলেছেন তাদের দেশপ্রেমে কোনো ঘাটতি নেই। এ নিয়ে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোচনা শুরু হয়।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য