Dinajpur pic 27-11-15নিজস্ব প্রতিনিধিঃ আসন্ন দিনাজপুর পৌরসভা নির্বাচনে দিনাজপুর পৌরসভায় একক মেয়র প্রার্থী হিসেবে জেলা বিএনপির যুগ্ন সাধারন সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সভাপতি বর্তমান মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলমকে প্রার্থী ঘোষনা করেছেন।

শুক্রবার বিকেল ৩টায় দিনাজপুর জেলা বিএনপির কার্যালয়ে জেলা বিএনপির সভাপতি আলহাজ্ব লুৎফর রহমান মিন্টুর সভাপতিত্বে পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী নির্ধারনের সভায় জেলা বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, মহিলা দল, শ্রমিক দল, স্বেচ্ছাসেবক দল, তাঁতী দল, তরুনদলসহ সকল সহযোগী সংগঠন সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলমকে মেয়র প্রার্থী হিসেবে সমর্থন করেন।

সভা শেষে সভাপতি আলহাজ্ব লুৎফর রহমান মিন্টু ও সাধারন সম্পাদক মুকুর চৌধুরী আনুষ্ঠানিক ভাবে ঘোষনা দেন আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে দিনাজপুর পৌরসভার মেয়র পদে ধানের শীশ নিয়ে লড়বেন বর্তমান মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম। সভায় বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য সাবেক এমপি আকতারুজ্জামান মিয়া, জাতীয়তাবাদী আইনজীবি ফোরামের সভাপতি এ্যাড.আব্দুল হালিম, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মাহাবুব আহমেদ, এ্যাড.আনিছুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক হাসানুজ্জামান উজ্জল, যুবদলের যুগ্ন আহবায়ক সুমন, ছাত্রদলের সদস্য সচীব মোকসেদুল ইসলাম টুটুল, শ্রমিকদলের সভাপতি সাইফুর রাজ চৌধুরী, মহিলা দলের শাহীন সুলতানা বিউটি, ওলামা দলের ফজলুর করীমসহ সকল সকল সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম বলেন, বিএনপি পৌর নির্বাচনে অংশগ্রহন করলে আমি দলীয় প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিবো। এই নির্বাচনী লড়াই হবে গণতন্ত্র পুনরুউদ্ধার ও জেল-জুলুম, মামলাবাজ সরকারের বিরুদ্ধে নির্বাচন।
[ads1]
৯ বছর পর বিএনপি কার্যালয়ে মিলনমেলাঃ ২০০৬ সালে বিএনপি ক্ষমতা ছেড়ে দেয়ার পর থেকে দিনাজপুর জেলা বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের মধ্যে ভাঙ্গনের দামামা বেজে ওঠে।

ক্ষমতাসীন থাকা অবস্থায় জেলা বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, কমিটিসহ জেলা বিএনপির কার্যালয় দখলে নেয় নতুন নেতাকর্মীরা। অভিযোগ করা হয় ওরা এলটেন, লুটেরা তাই বিএনপিতে ওদের প্রবেশ নিষিদ্ধ। এরপর নতুন বিএনপি ছাত্রদল, যুবদলসহ ৩ ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়ে।

২০০৮ সালে জাতীয় নির্বাচন ও ২০১৪ সালে উপজেলা নির্বাচনের ভাঙ্গনের বিষ্ফোরন ঘটে। একের পর এক পর বিএনপির প্রার্থীদের পরাজয় ঘটে। কিন্তু আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিগত দিনের নেতাকর্মী (এলটেন), জেলা বিএনপির সভাপতি আলহাজ্ব লুৎফর রহমান মিন্টু, সাধারন সম্পাদক মুকুর চৌধুরীর গ্র“পসহ ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল সকল বিভক্ত সহযোগী সংগঠন গুলো এক হয়ে সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলমকে মেয়র প্রার্থী সমর্থনের মধ্যে দিয়ে এক কাতারে মিলিত হয়।

শুক্রবারের জেলা বিএনপির কার্যালয় এই মিলন মেলা ছিল আনন্দ ও উৎসবের মেলা।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য