সর্দি জ্বরআগাম শীতের কারনে কুড়িগ্রামের রাজিবপুর উপজেলার ঘরে ঘরে শুরু হয়েছে সর্দি জ্বর ও শিশু ডায়েরিয়া। গত ১ সপ্তাহে ২ শিশুর মৃত্য হয়েছে বলে হাসপাতাল সুত্রে জানা গেছে। প্রতিদিন হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসছে আক্রান্তরা। এদিকে হাসপাতালে ডাক্তার না থাকায় স্বাস্থ্যকর্মীরা জোড়াতালি দিয়ে চালাচেছ চিকিৎসা।

জানা গেছে,উপজেলা স্বাস্থ্য ও পপ কর্মকর্তা ডাক্তার আবদুল মাবুদ ভয়ে রাজিবপুরে আসেন না।আরেকজন মেডিকেল অফিসার আতা রাব্বি গত ১ সপ্তাহ থেকে কর্মস্থলে নেই। এর ফলে স্বাস্থ্য সহকারীদের দিয়ে চলছে রাজিবপুর বাসীর চিকিৎসা। অভিযোগে পাওয়া গেছে,সুচিকিৎসার অভাবে রাকিব ও সজল নামের ২ শিশু গত ২ দিন আগে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে এসে মারা গেছে। এদিকে প্রতিদিন উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম থেকে সর্দিজ্বর ,নিউমোনিয়া,শিশু ডায়েরিয়ায় আক্রান্ত হয়ে ছুটে আসছে হাসপাতালে।ডাক্তার না পেয়ে তারা চলে যাচেছ শহরের দিকে।

গতকাল রোববার রাজিবপুর হাসপাতালে গিয়ে দেখা গেছে, ডাক্তার নেই।স্বাস্থ্য সহকারী কুদ্দুস রয়েছেন পিএসসি পরীক্ষার ডিউটিতে। স্বাস্থ্য সহকারী জুয়েল রানা রয়েছেন থানায়। হাসপাতালে রোগীরা ভীড় জমিয়েছে ডাক্তারের কক্ষের সামনে। করাতি পাড়া গ্রামের আকলিমা খাতুন জানান,তার নাতনীর ভীষন জ্বর ও জন্ডিস। তিনি ১ ঘন্টা যাবৎ অপেক্ষা করছেন ডাক্তারের জন্য। কিন্তু ডাক্তারের দেখা মিলছে না।এ ছাড়া আরও ৫০ জনের মত রোগী অপেক্ষা করছেন সেবা নেওয়ার জন্য। এ ব্যাপারে কার যেন মাথা ব্যথা নেই।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য