News pic (Nawabganj)এম.রুহুল আমিন প্রধানঃ দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সামনে জেলা পরিষদের অর্থায়নে ২০০৩ সালে নির্মিত ছাত্রী ছাউনি ব্যবহার করতে পারছে না যাত্রীরা। জেলা পরিষদের সুষ্ঠ তদারকির অভাবে যাত্রী ছাউনি ব্যবহার হচ্ছে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান হিসেবে।

উপজেলায় ৩ লক্ষাধিক জণসাধারনের বসবাস। কাঁচদহ করতোয়া নদীতে ড.ওয়াজেদ আলী মিয়া সেতু নির্মাণ হওয়ার পর পার্শ্ববর্তী রংপুরে পীরগঞ্জ, মিঠাপুকুর এলাকা থেকেও সকাল থেকে রাত পর্যন্ত নবাবগঞ্জ উপজেলা সদর হয়ে বিরামপুর, হিলি স্থলবন্দর, দিনাজপুর হয়ে পঞ্চগড় উত্তরে, পাঁচবিবি জয়পুর হয়ে বগুড়া সহ খোদ রাজধানীতেও যাওয়ায় যাত্রীরা ভীড় জমায় নবাবগঞ্জ সদরে। কোথাও যাত্রীরা অবস্থান নিতে পারে না।

এলাকার সচেতন ব্যক্তিবর্গ অভিযোগ করে জানান- জেলা পরিষদের অর্থায়নে নির্মিত যাত্রী ছাউনি ব্যবহার করতে না পারায় এ সুযোগ নিয়েছে কিছু ব্যবসায়ী। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে- যাত্রী ছাউনি সংলগ্ন ছোট ছোট দোকানঘর ভাড়া দিয়ে টাকা আদায় করছে জেলা পরিষদ। এলাকাবাসীর প্রশ্ন কে ব্যবহার করবে এ যাত্রী ছাউনি?
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য