News pic (DC)এম.রুহুল আমিন প্রধানঃ শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিতে পারলে মাদক সহ সমাজের অসামাজিক কার্যকলাপ ধ্বংস হবে, এ জন্য শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নতি ঘটাতে হবে। আজকে ভূমিকা নিলে ১০ বছর পর এর সফলতা পাবে শিক্ষার্থীরা। গত ১২ ই নভেম্বর দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে আইন শৃংখলা সংক্রান্ত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম উপরোক্ত কথাগুলো বলেছেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ বজলুর রশীদের সভাপতিত্বে বেলা ১১ টায় উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে আইন শৃংখলা বিষয়ক সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন- উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ নূরে আলম সিদ্দিকী। তিনি জানান- উপজেলার আইন শৃংখলা নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। তবে, গোপনে গ্রাম-গঞ্জে অসচেতন পরিবারের অভিভাবকেরা বাল্য বিয়ে দেয়ার প্রবণতা সৃষ্টি করছে। বাল্য বিয়ে প্রতিরোধ করতে না পারলে অল্প বয়সের মেয়েরা হারাচ্ছে তাদের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ জীবন।

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ ইসমাইল হোসেন, উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আতাউর রহমান, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক শাহ্ মোঃ জিয়াউর রহমান মানিক, প্রচার সম্পাদক মোঃ মোজাম্মেল হক, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার মোঃ দবিরুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ নজরুল ইসলাম, মোঃ আজিজুল হক, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রেবেকা সুলতানা, উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি ও সাপ্তাহিক হিলিবার্তার সহ সম্পাদক এম.রুহুল আমিন প্রধান, নিকাহ্ রেজিষ্ট্রার মোঃ ওয়াদুদ, মুসা আহম্মেদ প্রমুখ। সভায় উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি বলেছেন- নবাবগঞ্জ সদরে করতোয়া নদীর উপর ঝুঁকিপূর্ণ সেতু হয়ে প্রতিদিন ভারি যানবাহন সহ পারাপার হচ্ছে পথচারী।

যেকোন মুহুর্তে ব্রীজটি ভেঙ্গে পড়ে বড় ধরণের দূর্ঘটনার আশংকা বিরাজমান। এছাড়াও নবাবগঞ্জ থেকে বিরামপুরগামী সড়কটি প্রশস্থকরণ না হওয়ায় দিনাজপুর থেকে মেইল বাস, ট্রাক, অটো রিক্সা, অটো টেম্পু, মাহেন্দ্র চলাফেরা করায় প্রায়শই ছোটখাটো দূর্ঘটনার কবলে পড়ছে স্কুল শিক্ষার্থী সহ এলাকার লোকজন। সভাপতির বক্তব্যে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেছেন- এলাকার উন্নয়ন মূলক কাজে সকলের সহায়তা পেলে উন্নয়ন করা সম্ভব হবে। থানা অফিসার ইনচার্জ জানান- ইতোমধ্যেই ভ্রাম্যমান আদালতের মধ্যে দিয়ে জুয়ার আস্তানায় হানা দিয়ে ও মাদক সেবনের অপরাধে সাজা দেওয়া হচ্ছে।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য