ঠাকুরগাঁওয়ের আমিনুলের দুই আঙ্গুলের সংগ্রামমাসুদ রানা পলক, ঠাকুরগাঁওঃ জন্ম থেকেই সে অঙ্গ প্রতিবন্ধী আমিনুল। দুই আঙুল ও মাথা দিয়ে কলম চেপে ধরে জেএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে এবার । বামহাত নেই, ডান হাত আছে তবে দুই আঙ্গুল বিশিষ্ট। ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলার মল্লিকপুর গ্রামে তাঁর বাড়ি। এবার পীরগঞ্জ বণিক সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্রে সে ৮ম শ্রেণীর জেএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে। পরীক্ষা শেষে কথা হয় তাঁর সাথে।

সে জানায়, বাবা নজিবউদ্দিন অন্যের জমি চাষাবাদ করে সংসার চালায়, আর মাও অন্যের বাড়িতে কাজ করেন। দুই ভাই ও দুইবোনের মধ্যে সে ছোট। দুই বোনের বিয়ে হয়েছে। বড় ভাই বিয়ে করে আলাদা সংসার করছেন। একরামুলের স্বপ্ন একদিন সে সরকারী চাকুরী করে পরিবারের দুঃখ লাঘব করবে। স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দিতে প্রতিবন্ধী হয়েও কষ্ট করেই লেখাপড়া চালিয়ে যাচ্ছে। ৫ম শ্রেণীর পিএসসি পরীক্ষাই জিপিএ-৫ পেয়েছে সে। প্রতিমাসে ৫০০টাকা প্রতিবন্ধী ভাতা পায়।

যা দিয়ে কোন মতে পড়ালেখার খরচ চালিয়ে যাচ্ছে সে। একরামুল আরো বলে, প্রতিবন্ধী হওয়ার কারণে সাইকেলও চালাতে পারি না। বাড়ি থেকে স্কুল ৩ কিঃমিঃ দূরে।

যানবাহনে ১০টাকা দিয়ে প্রতিদিন যাওয়া-আসা করতে হয়। বৃষ্টির দিনে যানবাহন না পেলে স্কুলে যাওয়া হয় না তাঁর। দুই আঙ্গুলে চামচ ধরে খাওয়া-দাওয়া করে সে। গোসল করতে তাঁর মা ও ভাবী সাহায্য করেন।

স্কুল শিক্ষকরা কেমন সহযোগিতা করেন পড়ালেখায় জানতে চাইলে সে জানায়, প্রতিবন্ধী হওয়ায় যেরকম সহযোগিতা প্রয়োজন সেরকম সহযোগিতা শিক্ষকেরা করে না। ক্লাসে স্যার একটা অঙ্ক বুঝিয়ে দিয়ে আরেকটা অঙ্ক করতে দিলে আমার লিখতে সময় লাগে কিন্তু স্যার আমার অঙ্ক আর দেখে না।

কখনো বুঝতে কষ্ট হলে আমাকে আলাদা ভাবে বুঝিয়ে দেওয়া হয় না। বন্ধুরা সব খেলা খেলতে পারে কিন্তু আমি খেলতে পারি না। তবে সে ভালো ফুটবল খেলতে পারে বলে জানায়। এবারের জেএসসি পরীক্ষাতেও জিপিএ-৫ পাওয়ার আশা করছে একরামুল।

প্রতিবন্ধী হওয়ায় পরীক্ষায় অতিরিক্ত সময় ২০ মিনিট পাওয়ার কথা থাকলেও একরামুল জানে না সে বিষয়। একরামুল বলে, যেহেতু আমাকে দুই আঙ্গুল ও মাথা চেপে লিখতে হয়। এজন্য আমার ২০ মিনিট সময় বেশি পেলে সব প্রশ্নই উত্তর দিতে পারতাম। অতিরিক্ত সময়ের বিষয়ে জানা নেই তাঁর।

প্রতিবন্ধী পরীক্ষার্থীদের জন্য অতিরিক্ত সময় আছে কি না এ বিষয়ে কথা হয় দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক তোফাজ্জুর রহমান এর সাথে। তিনি জানান, প্রতিবন্ধী পরীক্ষার্থীদের জন্য অতিরিক্ত ২০ মিনিট সময় বেশি আছে। তবে এক্ষেত্রে প্রথমে বোর্ডে আবেদন করতে হবে।বোর্ডের নির্দেশনা অনুযায়ী কোন কেন্দ্রে প্রতিবন্ধী কোন পরীক্ষার্থী থাকলে তাঁকে অতিরিক্ত ২০মিনিট সময় বেশি দেওয়া হবে।

এবিষয়ে পীরগঞ্জ বণিক সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের কেন্দ্রসচিব হালিমা বেগম জানান, পরীক্ষা শুরুর আগেই সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শিক্ষা বোর্ডে আবেদন করলে অতিরিক্ত সময় পাওয়া যেত। কেন্দ্রসচিব হিসেবে আমার কোন করার নেই।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য