Birganj- 04.11.15-1দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের বীরগঞ্জে সিজার করার সময় অপারেশন থিয়েটারে ভুল চিকিৎসায় নবজাতকের এবং পরে প্রসুতি মায়ের মৃত্যু হয়েছে, মোটা অংকের বিনিময়ে রাতারাতি আপোষ।

জানা যায়, মঙ্গলবার সকাল ১১ বীরগঞ্জ উপজেলার সুজালপুর ইউনিয়নের বোয়ালমারীর গ্রামের ইলেক্ট্রনিক মিস্ত্রী নুর জামানের স্ত্রী সন্তান সম্ভবা মোছাঃ আনোয়ারা খাতুন (২৯) এর প্রসুতি কালীন প্রসব ব্যথা শুরু হলে দ্রুত তাকে বীরগঞ্জ পৌর শহরের বীরগঞ্জ ক্লিনিকে নিয়ে এসে ভর্তি করা হয়। দুপুর ৩ টায় ডা. মারুফ হোসেন প্রসুতি আনোয়ারা খাতুনের অস্ত্রপাচারের মাধ্যমে সিজার (অপারেশন) করে। অপারেশনের টেবিলেই নবজাতক শিশুটির মৃত্যু হয় এবং প্রসুতি আনোয়ারা খাতুনের শারিরিক অবস্থা আশংকাজনক হলে পরিবারে লোকজনকে না জানিয়ে দ্রুত দিনাজপুর জিয়া হার্ট ফান্ডেশনে নিয়ে ভর্তি করেন ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ। রাত ৯টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় আনোয়ারা খাতুনের মৃত্যু হয় বলে নিহত পরিবারের পক্ষে আসাদুজ্জামান ও গুলজান হোসেন জানায়।

ক্লিনিক মালিক বেলাল হোসেন ঘটনাটি ঘটার পরেই উধাও হয়ে গেলে পরে তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে সে জানায়, রোগী শারিরিক দুর্বলতার কারণে রক্তচাপ বেড়ে যায় ঘটনাটি ঘটে, এছাড়াও দম্ভের সাথে বলেন ক্লিনিক চালাতে গেলে এরকম ২/১টি ঘটানা ঘটতেই পারে। প্রশাসন ও সিভিল সার্জন টাকা পেলেই সব ঠিক হয়ে যায়। আপনারা যা ইচ্ছা লিখেন কোন লাভ নেই পূর্বেও লিখে কিছু করতে পারেননি আগামীতেও পারবেনা।

অপরদিকে এলাকা বাসী জানায়, কয়েকদিন পূর্বেও দাড়ীয়াপুর গ্রামের এক প্রসুতির এরুপ ঘটনা ঘটলে নিজপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যন সাবেক বিএনপি নেতা এম. এ. খালেক সরকার তার কার্যালয়ে বসে ২/৩ লাখ টাকার বিনিময়ে আপোশ করলে তার সাহস বেড়ে যায়। রাতেই মৃতার পরিবারের লোকজন আইনগত ব্যাবস্থার কথা জানালে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে রাতারাতি আপোষ করেন ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ বেলাল হোসেন। এছাড়াও সে এক জন জামায়াতের সক্রিয় অর্থদাতা।

এব্যপারে বীরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, বিভিন্ন মাধ্যমে ঘটনাটি জানতে পারি, তবে এ ব্যাপারে লিখিত কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেলে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য