Rangpur Mapরংপুরে অবৈধ ক্যাবল টিভি অপারেটরদের কারনে লাখ লাখ টাকার রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সরকার। শুধুমাত্র ভারতীয় ভূখন্ডে ব্যবহৃত চোরাই পথে নিয়ে আসা সান-ডিরেক্ট, এয়ারটেল, বিগ-টিভি, ডিস টিভি, টাটা স্কাই, ডিটি.এইচ-ভিডিওকন এই জাতীয় ডি.টি.এইচ বক্সের মাধ্যমে অবৈধভাবে পে-চ্যানেলের সম্প্রচার চালাতে গিয়ে প্রতিমাসে হুন্ডির মাধ্যমে বিপুল পরিমান অর্থ বিদেশে পাচার করার কারনে এই পরিমান রাজস্ব বঞ্চিত হচ্ছে সরকার। পাশাপাশি চোরাই পথে নিয়ে আসা ভারতীয় ডি.টি.এইচ বক্স দিয়ে অবৈধভাবে পে-চ্যানেলের সম্প্রচার চালানোর কারনে নানামূখি সমস্যার সম্মুক্ষিণ হচ্ছে বৈধ ক্যাবল টিভি অপারেটররা। অথচ বাণিজ্যিক ভিত্তিতে ব্যবহৃত ওইসব অবৈধ ডি.টি.এইচ বক্স জব্দ করে পরিচালনাকারীদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার সরকারি নির্দেশ থাকলেও অজ্ঞাত কারনে সেই নির্দেশ উপেক্ষা করে চলছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। ফলে অবৈধ ক্যাবল টিভি অপারেটরদের কালো টাকার ঝনঝনানিতে মাঠ দখলের প্রতিযোগিতায় আইন-শৃঙ্খলার চরম অবনতিসহ রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা দেখা দিয়েছে।

অনুসন্ধানে জানা যায়, রংপুর মহা-নগরীর কয়েকটি স্থানে কতিপয় অবৈধ ক্যাবল টিভি অপারেটররা নিজস্ব কন্টোলরুম বসিয়ে ভারতীয় ভূখন্ডে ব্যবহৃত সান-ডিরেক্ট, এয়ারটেল, বিগ-টিভি, ডিস টিভি, টাটা স্কাই, ডিটি.এইচ-ভিডিওকন এই জাতীয় ডি.টি.এইচ বক্স চোরাই পথে নিয়ে এসে বিদেশি টিভি চ্যানেলের লিং ডাউনলোড করে অবৈধভাবে পে-চ্যানেলের সম্প্রচার চালিয়ে আসছে। আর বাণিজ্যিক ভিত্তিতে ব্যবহৃত ওইসব ডি.টি.এইচ বক্স চালু রাখতে অবৈধ উপায়ে নির্ধারিত ফি রির্চাজ করতে গিয়ে অবৈধ ক্যাবল টিভি অপারেটররা হুন্ডির আশ্রয় নেন। ফলে প্রতিমাসে লাখ লাখ টাকার রাজস্ব আদায় থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সরকার। পাশাপাশি অবৈধ ওইসব ক্যাবল টিভি অপারেটরদের দৌড়াত্বে আইন-শৃঙ্খলার চরম অবনতিসহ রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের যে আশংকা দেখা দিয়েছে তাতে করে বৈধ ক্যাবল টিভি অপারেটররা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। একই কারণে ইতোপূর্বে রংপুরে অর্ধ-শতাধিক প্রাণহানীর ঘটনা ঘটেছে। আর ক্যাবল টিভিকে কেন্দ্র করে সংঘাতময় পরিস্থিতি এড়ানোসহ প্রাণহানী ঠেকাতে রংপুরের সকল ক্যাবল টিভি অপারেটর বৈধভাবে শান্তিপূর্ন পরিবেশে ব্যবসা পরিচালনার জন্য চুক্তিবদ্ধ হন।

কিন্তু কতিপয় স্বার্থান্বেষী অপারেটর তাদের সন্ত্রাসি কার্যক্রম বহাল রাখতে সরকারি রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে বৈধ অপারেটরদের বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে নগরীর বিভিন্নস্থানে অবৈধ কন্টোলরুম গড়ে তুলে দেদারছে বাণিজ্য চালিয়ে আসছে। অথচ তথ্য মন্ত্রণালয়ের টিভি-২ শাখা থেকে গত ২৬ আগষ্ট প্রজ্ঞাপণ জারীর মাধ্যমে বাণিজ্যিক ভিত্তিতে ব্যবহৃত ওইসব অবৈধ ডি.টি.এইচ বক্স মালিকদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার নির্দেশ দিয়ে সারাদেশের মতো রংপুরের জেলা প্রশাসকসহ পুলিশ সুপার বরাবর চিঠি পাঠানো হয়। কিন্তু অজ্ঞাত কারনে সরকারের সেই নির্দেশ দিনের পর দিন উপেক্ষা করে আসছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। এ ব্যাপারে ২৭অক্টোবর সোমবার রংপুরের জেলা প্রশাসক রাহাত আনোয়ারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে পরে কথা বলবেন বলে তিনি জানান।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য