Photo Breastfeeding Room- Dinajurদিনাজপুর সংবাদাতাঃ বাসার বাইরে শিশুকে বুকের দুধ দেয়ার ক্ষেত্রে মায়েদের জন্য আলাদা কোনো জায়গা নেই। সঠিক সময়ে শিশুকে মায়ের দুধ খাওয়ানোর মাধ্যমে মা ও শিশুর সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করতে নেস্লে বাংলাদেশ লিমিটেড দেশজুড়ে ১ হাজার ব্রেস্টফিডিং রুম স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছে। সেই উদ্যোগের অংশ হিসেবে অতি সম্প্রতি দিনাজপুরে দু’টি ব্রেস্টফিডিং রুমের উদ্বোধন করলো  নেস্লে।

দিনাজপুর সদরে অরবিন্দ শিশু হাসপাতাল ও জোড়াব্রিজে গ্রিন ডায়াগনস্টিক সেন্টারে এ ব্রেস্টফিডিং রুম স্থাপন করা হয়। অরবিন্দ শিশু হাসপাতালে বেস্টফিডিং রুমের উদ্বোধন করেন দিনাজপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (এডিসি) তৌফিক ইমাম। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের পেডিয়াট্রিক বিভাগের প্রধান এসএম ওয়ারেস, অরবিন্দ শিশু হাসপাতালের সভাপতি আবুল হোসেন পাটোয়ারী, সাধারণ স¤পাদক বিমল কুমার রায় এবং দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের পেডিয়াট্রিক বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মশিউর রহমান। জোড়াব্রিজে গ্রিন ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ব্রেস্টফিডিং রুমের উদ্বোধন করেন দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের পেডিয়াট্রিক বিভাগের প্রধান এসএম ওয়ারেস। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানগুলোয় নেস্লের কর্মকর্তাগণও উপস্থিত ছিলেন।

নেস্লে এরই মধ্যে সারা দেশজুড়ে ১০৩টি ব্রেস্টফিডিং রুম স্থাপন করেছে। এর মধ্যে রয়েছে ঢাকা ন্যাশনাল মেডিকেল হাসপাতাল, রাজারবাগ সেন্ট্রাল পুলিশ হাসপাতাল, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, জেমসিন রেড ক্রিসেন্ট ম্যাটার্নিটি হাসপাতাল, মাদারীপুর সদর হাসপাতাল ও ভোলা সদর হাসপাতাল, টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়ার সদর হাসপাতাল ও খ্রিশ্চিয়ান মিশন হাসপাতাল এবং সাভারে দীপ ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার।

নেস্লের এ উদ্যোগ ইতিমধ্যে ব্যাপকভাবে প্রসংশিত হয়েছে। ‘টুগেদার, নার্চারিং এ হেলদিয়ার জেনারেশন’- এ লক্ষ্যেই কাজ করে যাচ্ছে নেস্লে। আর এই সুস্থ প্রজন্ম গঠনে মায়ের দুধের কোনো বিকল্প নেই। শিশুর ছয় মাস বয়স পর্যন্ত মায়ের দুধই শিশুকে পর্যাপ্ত পুষ্টি সরবরাহ করে।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য