প্রধানমন্ত্রী, বঙ্গবন্ধু ও স্থানীয় সাংসদের ছবি ভাংচুরসহ অগ্নি সংযোগের ঘটনায় লালমনিরহাটে বর্তমানে আ’লীগ দু’ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছে। ফলে আ’লীগের দ্বন্দ বর্তমানে প্রকাশ্যে রুপ নিয়েছে। এ কারনে দলকে সুসংগঠিত করার লক্ষে তৃণমূল আ’লীগ সমর্থক গোষ্টি গত কয়েক দিন ধরে বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করে আসছে। প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার দুপুরে জেলা ছাত্রলীগ কার্যলয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, সংগঠনের প্রধান সমন্বয়কারী মাহবুবুর রহমান নয়ন। লিখিত বক্তব্যে তিনি অভিযোগ করে বলেন, ২৭ ফেব্র“য়ারী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক অ্যাড. মতিয়ার রহমান দলীয় সিদ্ধান্তকে উপেক্ষা করে মুক্তিযুদ্ধ বিরোধীর সন্তান জাপা সমর্থিত প্রার্থীর পক্ষে কাজ করেন। এতে স্থানীয় সাংসদ আবু সাঈদ দুলাল ও তার কর্মীবৃন্দ প্রতিবাদ জানালে ওই সাধারণ সম্পাদক ক্ষুব্ধ হয় এবং সাংগঠিক সম্পাদক গোলাম মোস্তফা স্বপনকে সাথে নিয়ে জেলার বিভিন্ন এলাকায় বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রী ও স্থানীয় সাংসদের ছবি ভাংচুর ও অগ্নি সংযোগ করে। বিষয়টিকে কেন্দ্র করে গত কয়েক ধরে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের ব্যক্তিরাসহ তৃণমূল আ’লীগ সমর্থকরা প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিভিন্ন কর্মসুচী পালন করে আসছে। এ চলমান আন্দোলনের সাথে সংহতি প্রকাশ করেছেন, লালমনিরহাট পৌর মেয়র রিয়াজুল ইসলাম রিন্টুসহ উপজেলার আ’লীগের তৃণমূল নেতাকর্মীরা। উল্লেখ্য যে, স্থানীয় সাংসদ আবু সাঈদ দুলাল যে মূহুর্তে তৃণমূল নেতাকর্মীদের সুসংগঠিত করে দলকে প্রতিষ্ঠিত করার প্রত্যয় নিয়েছেন ঠিক সেই মূহুর্তে একটি স্বার্থান্বেসী মহল সাংসদ আবু সাঈদ দুলালের বিরুদ্ধে ঘৃন্য ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে বলে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়। এ কারনে তারা দলের এই বেহাল দশা থেকে উত্তরনের জন্য দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য