হাঙ্গেরি সীমান্ত বন্ধে অভিবাসী স্রোত স্লোভেনিয়ায়ক্রোয়েশিয়ার সঙ্গে হাঙ্গেরির সীমান্ত বন্ধ হয়ে যাওয়ায় অভিবাসীদের স্রোত এখন স্লোভেনিয়া অভিমুখে নামছে। শনিবার (১৭ অক্টোবর) ইউরোপের দেশটিতে ২৭০০ অভিবাসী ঢুকে পড়েছেন।

ক্রোয়েশিয়ার পূর্বাঞ্চলের সঙ্গে হাঙ্গেরির দক্ষিণ সীমান্ত খোলা থাকতে সে পথেই ইউরোপের দেশগুলোতে প্রবেশ করতেন অভিবাসীরা। বিশেষত, এ পথ দিয়েই জার্মানিসহ বিভিন্ন দেশে আশ্রয় নিতেন তারা। রোববার (১৬ অক্টোবর) রাতে ওই সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়ায় এখন অভিবাসীরা উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল হয়ে স্লোভেনিয়া অভিমুখে ধাবিত হচ্ছেন।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম জানায়, শনিবার পর্যন্ত ২৭০০ অভিবাসী ক্রোয়েশিয়া হয়ে স্লোভেনিয়ায় ঢুকে পড়েছেন। শেষ রাতে এ সংখ্যা আরও বেড়ে যাওয়ার কথা। এ অভিবাসীরা বিশেষত বাসযোগে স্লোভেনিয়ায় ঢুকছেন। এদের বেশিরভাগই যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়া-ইরাক-আফগানিস্তানের নাগরিক।

এদিকে, ক্রমশঃ বড় ‍আকার ধারণ করা এ অভিবাসী সংকট সামলাতে পুলিশকে সহায়তার জন্য সেনাবাহিনীকে ডেকেছেন স্লোভেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী মিরো সেরার। তিনি বলেছেন, সংকট সমাধানে পুলিশের সহায়তায় কাজ করবে সেনাবাহিনী।

অন্যদিকে হাঙ্গেরি কর্তৃপক্ষ বলছে, ইউরোপীয় ইউনিয়ন নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েন করে তার বাইরের সীমান্ত রক্ষা করতে ব্যর্থ হয়েছে, সেজন্য সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

গত সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি সার্বিয়ার সঙ্গে সীমান্তও বন্ধ করে দেয় হাঙ্গেরি। ওই সীমান্ত বন্ধের আগ পর্যন্ত ক্রোয়েশিয়ার মধ্য দিয়ে বাস ও ট্রেনে পৌনে দু’লাখেরও বেশি অভিবাসী হাঙ্গেরিতে প্রবেশ করে। মধ্যপ্রাচ্য, আফ্রিকা ও এশিয়া থেকে দারিদ্র্য বা সহিংসতা থেকে বাঁচতে আসা এ অভিবাসীদের অধিকাংশই ইউরোপের অর্থনৈতিক কেন্দ্রভূমি জার্মানিতে প্রবেশের চেষ্টা করছে। আইওএমর দেওয়া তথ্যমতে, এ বছর এরই মধ্যে ছয় লাখের মতো শরণার্থী সমুদ্রপথে ইউরোপে পৌঁছেছে।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য