17.10.2015-Durga Puja-মোঃ আবেদ আলী, বীরগঞ্জঃ বীরগঞ্জে হিন্দু ধর্মাবলীদের সর্ববৃহৎ উৎসব শারদীয় দূর্গাৎসব উৎসব বেশ আনন্দ ঘন পরিবেশে উৎযাপিত হতে যাচ্ছে। ভক্তদের পাশাপাশি মনোনয়ন প্রত্যাশীদের পদচারনায় মুখরিত হয়ে উঠেছে প্রতিটি পূঁজা মন্ডব।

উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌর সভায় মোট ১৪৯টি পূঁজা মন্ডবে অনুষ্ঠিত হচ্ছে শারদীয় দূর্গাৎসব। শান্তিপূর্ণ ভাবে পুঁজা উৎসব পালনে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষে নেওয়া হয়েছে ব্যাপক প্রস্তুতি।

আইন-শৃংখলা রক্ষা ও যে কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে আনসার-ভিডিপির পাশাপাশি পুলিশ নিয়োগ দেওয়া হয়েছে পূঁজা মন্ডব গুলিতে। প্রতিটি পূঁজা মন্ডবে ভক্তদের ঢল উৎসব উপভোগ করতে আসে বিভিন্ন ধর্মের মানুষ।

এ সবের পাশাপাশি এবারে যোগ হয়েছে নতুন মাত্রা। আগামী পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে হিন্দু সম্প্রদায় ভোটারদের দৃষ্টি আর্কষন করতে বিশাল শোডাইন নিয়ে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের পদচারনায় মুখরিত হয়ে উঠেছে প্রতিটি পূঁজা মন্ডব।

মটর সাইকেল ও অনেকে মটর সাইকেল বহর নিয়ে উপজেলা বিভিন্ন পূঁজা মন্ডবে গিয়ে উপস্থিত সকল ধর্মপ্রাণ মানুষের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করছেন ও উপস্থিত ভক্তদের উদ্যেশ্যে বক্তব্যে দেশ, দল ও প্রার্থীর জন্য দোয়া প্রার্থনা করছেন।

আইন-শৃংখলা রক্ষায় গৃহীত পদক্ষেপ বিষয়ে বীরগঞ্জ থানার ওসি প্রশাসন মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌর সভায় মোট ১৪৯টি মন্ডবে পূঁজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

আমরা পূঁজা মন্ডবগুলিকে তিনটি ক্যাটাগরিতে ভাগ করেছি। প্রথমত-বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ কিছুটা ঝুকিপূর্ণ। দ্বিতীয়ত-সাধারণ কম ঝুকিপূর্ণ। তৃতীয়ত-অতি সাধারণ ঝুকি মুক্ত ও পারিবারিক ভাবে যে পূঁজা গুলি অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

এ ক্ষেত্রে প্রমথত-থাকবে ৪জন পুরুষ ৪জন মহিলা আনসার-ভিডিপি। দ্বিতীয়ত থাকবে ৩জন পুরুষ ৩জন মহিলা আনসার ভিডিপি। তৃতীয়ত থাকবে ২জন পুরুষ ২জন মহিলা আনসার ও ভিডিবি এবং  পাশাপাশি থাকছে গ্রাম পুলিশ, থানা পুলিশ। কাজ করছে পুলিশের মোবাইল টিম ও জেলা ও উপজেলা প্রশাসন।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য