02-Mehejabinবিনোদন: মেহ্জাবিন চৌধুরী যখন লাক্স সুপারস্টার হয়ে বিভিন্ন নাটক এবং টেলিফিল্মে কাজ শুরু করেন তখন দেশের বাইরে বেড়ে ওঠা এবং ইংরেজি মাধ্যমে পড়াশোনা করা এ অভিনেত্রীর বাংলায় অভিনয় করতে বেশ কষ্টই হতো। কিন্তু দিন দিন প্রতিদিন ভালো ভাল স্ক্রিপ্টের নাটকে কাজ করতে করতে এবং নিজের আন্তরিক চেষ্টায় মেহ্জাবিন চৌধুরী অভিনয়ে নিজেকে যেমন আজ সিদ্ধহস্ত করেছেন ঠিক তেমনি এখন তিনি অনায়াসে মাতৃভাষায় কথা বলতে পারেন নিজের মতো করেই। সময়টা এখন এমন যে ভালো গল্পের স্ক্রিপ্ট এখন তার হাতে আসে এবং তিনি সেসব কাজ খুব চ্যালেঞ্জ নিয়েই করেন। ঠিক তেমনি গত ঈদে এবং গত ৮ই অক্টোবর মেহ্জাবিন চৌধুরীর দুটি ভিন্ন ধরনের চরিত্রের নাটক প্রচার হয়েছে।

ঈদের পঞ্চম দিন সন্ধ্যা ৭টা ৪৫ মিনিটে দেশটিভিতে প্রচার হয় রুমান রুনি পরিচালিত ‘সোনায় সোহাগা’ এবং ৮ই অক্টোবর রাত ৮টায় মাছরাঙা টিভিতে প্রচার হয় ওয়াসিম সিতারের ‘আনম্যারিড’ নাটক দুটি। ‘সোনায় সোহাগা’ নাটকে মেহ্জাবিন চৌধুরী অভিনয় করেছেন তোতলা এক মেয়ের চরিত্রে এবং ‘আনম্যারিড’ নাটকে একইসঙ্গে একজনের প্রেমিকা এবং একজনের স্ত্রী চরিত্রে। প্রথমবারের মতো তোতলা এক মেয়ের চরিত্রে অনবদ্য অভিনয় করেছেন মেহ্জাবিন চৌধুরী। নাটকটি যারাই দেখেছেন তারাই মেহ্জাবিনের অভিনয়ে অবাক হয়েছেন, সেইসঙ্গে হয়েছেন মুগ্ধও।

অন্যদিকে ‘আনম্যারিড’ নাটকের শেষ দৃশ্যে বেশ আবেগজড়িত কণ্ঠে কেঁদে কেঁদে মেহ্জাবিনের বেশ কয়েক মিনিটের টানা অনবদ্য অভিনয় ছিল বিস্ময় করার মতোই। মেহ্জাবিন বলেন, অভিনয়ে এখন আমি আগের চেয়ে অনেক বেশি সিরিয়াস হয়ে উঠেছি। কারণ আমি নিজেকে একজন অভিনেত্রী পরিচয় দিতেই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি। তাই সবার সহযোগিতায় নিজেকে অভিনয়ে সমৃদ্ধি করে তোলার চেষ্টা করছি।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য