বিয়ে বাড়িদিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ দিনাজপুরের বীরগঞ্জে প্রথম বিয়ে গোপন করে দ্বিতীয় বিয়ে করার ঘটনা ফাঁস হওয়ায় ও বরসহ ১৩জনকে মাইক্রোবাস দুই দিন ধরে অবরুদ্ধ করে রাখে ক্ষুদ্ধ এলাকাবাসী। পরে সংবাদ পেয়ে পুলিশ বৃহস্পতিবার রাত ১২টায় উদ্ধার করে নিয়ে আসে।

শুক্রবার সকালে পরিবারের কাছে উদ্ধারকৃত সকলকে হস্তান্তর করেছে পুলিশ।

বীরগঞ্জ থানার এএসআই মোঃ বাবুল হোসেন জানান, উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়নের কুতুলপুর গ্রামের শাহ আলমের ছেলে ফেরাজুল ইসলাম (৩২) গত সোমবার একই উপজেলার শিবরামপুর ইউনিয়নের মুরারীপুর গ্রামের আব্দুল মান্নান মেয়ে মর্জিনা খাতুন (২০) কে ৪লক্ষ টাকা যৌতিক নিয়ে আনুষ্ঠানিক ভাবে বিয়ে করে। গত মঙ্গলবার মর্জিনার বাবা মেয়ে জামাই ও জামাইয়ের ভগ্নিপতিসহ তাদের বাড়ীতে নিয়ে আসে। বুধবার বরের লোকজন কনেসহ বরকে নিতে মাইক্রোবাসযোগে কনের বাড়ীতে আসে।

এ দিকে স্বামীর বিয়ের সংবাদ পেয়ে ফেরাজুল ইসলামের প্রথম স্ত্রী নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর উপজেলার সোনাপুকুর পশ্চিমপাড়ার মৃত আসগর আলীর মেয়ে চান্দুরা পল্লীবিদ্যুৎ হরিনহাটির কর্মী লায়লা খাতুন (২০) শিবরামপুরে ছুটে আসে। এখানে এসে আব্দুল মান্নানকে  বিষয়টি খুলে বলে। এ সময় বর পক্ষের লোকজন পালিয়ে যাবার চেষ্টা করলে এলাকাবাসী তাদের আটক করে রাখে।

লায়লা খাতুন জানান, ১৩/০২/২০১৪ সালের ১৩ফেব্রুয়ারী তারিখে ঢাকা গাজীপুরে একলক্ষ টাকা মোহরানা ধার্য করে দুজনে আনুষ্ঠানিক বিয়ে করে। এরপর সেখানে দুজনে বসবাস করছেন। ঈদুল আজহার দিন তারা একই সাথে ঢাকায় ঈদ করেছে। শনিবারে সে গ্রামের বাড়ীতে জরুরী কাজে আসে। পরে তার এলাকার লোকজন বিয়ের বিষয়টি মোবাইলে জানালে আমি ছুটে এসে দেখি ঘটনা সত্য।

এ দিকে বিয়ে নিয়ে প্রতারণা করার অভিযোগে আটক বরের বাবা উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়নের কুতুলপুর গ্রামের শাহ আলম (৫০), বর ফেরাজুল ইসলাম (৩২), একই গ্রামের শাহিনুর ইসলাম (২৪), ছমির আলী (৪২), রিয়াজুল ইসলাম (২২), মোজাম্মেল হক (৩৯), শিল্পি আক্তার (৩২), পারভিন আক্তার (৩৭), সেলিনা আক্তার (৩৩), রাজিয়া বেগম (৩৭), একই ইউনিয়নের চিলকুড়া গ্রামের আয়নাল হক (২৬) নিজপাড়া ইউনিয়নের জগদিশপুর গ্রামের আব্দুল জলিল (৩১), উছমান গনি (২১) সহ ১৩জনকে মাইক্রোবাস (চট্রমেট্রো ১১-০৮৬৬) উদ্ধার করে শুক্রবার সকালে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে পুলিশ।

বীরগঞ্জ থানার ওসি (প্রশাসন) মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, এ ব্যাপারে কোন পক্ষই মামলা করতে রাজি হয়নি। উভয়ে পক্ষ দুই ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে বিষয়টি স্থানীয় ভাবে সমঝোতা করবেন বলে জানিয়েছেন।
[ads1]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য