ডোমার খাদ্যগুদাম কর্মকর্তার কান্ডদুঃস্থ্য মাতা (ভিজিডি) কাডের চাল সরবরাহে ওজনের কম দেয়ার অভিযোগ উঠেছে নীলফামারী ডোমার উপজেলার সরকারি খাদ্য গুদাম কর্মকর্তার বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার খাদ্য গুদামে এ ঘটনা নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানেরা চাল উত্তোলন না করে ফিরে গেছে। ইউপি চেয়ারম্যানদের অভিযোগ উপজেলা খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা প্রতি বস্তায় দেড়কেজি করে কম চাল দিয়েছিল। এতে মোট ২ হাজার ৯৩৬ বস্তায় ৪ হাজার ৪০৪ কেজি চাল কম দেয়া হচ্ছিল। যার বাজার মূল্য প্রায় ১ লাখ ৫ হাজার টাকা।

জানা যায়, ডোমার উপজেলার ৫টি ইউনিয়নের জন্য জুলাই ও আগষ্ট এই দুই মাসের ভিজিডি কাডের চাল সরবরাহ করা হয় মঙ্গলবার। প্রতিটি বস্তায় চাল থাকবে ৩০ কেজি করে। আর বস্তা সহ ওজন হবে সাড়ে ৩০কেজি করে। এরমধ্যে পাঙ্গামটকপুর ইউনিয়নের ৩০৭টি কাডের বিপরিতে ৬১৪ বস্তা, বোড়াগাড়ী ইউনিয়নে ৩২৯টি কাডের বিপরিতে ৬৫৮ বস্তা, ডোমার সদর ইউনিয়নে ২৭৫ কাডের বিপরিতে ৫৫০ বস্তা, হরিণচড়া ইউনিয়নে ২২৪ বস্তার বিপরিতে ৪৪৮ বস্তা ও সোনারায় ইউনিয়নের ৩৩৩ টি কাডের বিপরিতে ৬৬৬ বস্তা।

সোনারায় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান সরকার অভিযোগ করে জানান, এবার সরকারের পক্ষে ভিজিডি চাল বিতরনে নতুন নিয়ম চালু করেছে। যা প্রতিমাসে কাডধারীরা বস্তা সহ ওজনে সাড়ে ৩০ কেজি করে চাল পাবেন। এ জন্য খাদ্য গুদামেই সংশ্লিষ্টরা ওই নতুন নিয়মে চাল ভরে বস্তা তৈরী করেন।

তিনি বলেন, নতুন নিয়মে এবার চাল উত্তোলন করতে এসে বস্তা ওজন করে দেখা যায় প্রতিটি বস্তায় সাড়ে ৩০ কেজি চালের স্থলে ২৯ কেজিরও কম করে চাল রয়েছে। এ ঘটনার প্রতিবাদ করে আমরা চাল উত্তোলন করিনি।

তবে সকালে বিশ্বাসের উপর বস্তা ওজন না করেই চাল উত্তোলন করে নিয়ে পাঙ্গামটকপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল হাকিম ভুট্ট। তিনি জানান, চাল উত্তোলন করে ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে আসার পর বস্তা ওজন করে দেখা যায় প্রতিটি বস্তায় দেড় কেজি করে চাল কম।

ইউপি চেয়ারম্যানদের অভিযোগ মতে, ৫ ইউনিয়নের দুই মাসের ভিজিডি কাডের মোট ২ হাজার ৯৩৬টি বস্তায় ৪ হাজার ৪০৪ কেজি চাল কম দেয়া হচ্ছিল। যার বর্তমান বাজার মূল্য এক লাখ ৫ হাজার টাকা।

ডোমার উপজেলা খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা আইউব আলী ঘটনার সত্যতা স্বিকার করে জানান, আমরা ইচ্ছাকৃতভাবে বস্তায় চাল কম দেইনি। আমাদের সরকারী মাপার যন্ত্রটি নষ্ট হওয়ায় অন্য যন্ত্র দিয়ে চাল মাপায় এ ঘটনা ঘটে। ভালো কাটা (মাপযন্ত্র) দিয়ে পুনরায় চাল ওজন করে বস্তায় ভরে ইউনিয়ন চেয়ারম্যানদের সরবরাহ করা হবে।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য