arr2ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুরে ৪র্থ শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে মঙ্গলবার রাত্রে ইসাহাক আলী ওরফে বাবু (২০) নামে এক যুবককে আটক করেছে থানা পুলিশ।

ইসাহাক আলী ওরফে বাবু (২০) হরিপুর উপজেলার রণহাট্টা গ্রামের ইউনুস আলীর ছেলে। ভিকটিম (৪র্থ শ্রেণির ছাত্রী) বাড়ি একই উপজেলার পাহাড়গাঁও গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমের কন্যা (৯) এবং বীড়গর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণির ছাত্রী।

ঘটনাটি ঘটে গত সোমবার দিবাগত রাত ৮টার দিকে চৌরঙ্গী বাজারের দক্ষিণ দিকে বাংলালিংক টাওয়ারের সামনে।

সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফজলুল রহমান বিশ্বাস ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানাযায়, গত সোমবার দিবাগত রাত ৮টার দিকে চৌরঙ্গী বাজার সংলগ্ন কোচিং সেন্টার থেকে জাহাঙ্গীর আলমের কন্যা (৪র্থ শ্রেণির ছাত্রী) বাড়ি ফেরার পথে চৌরঙ্গী বাজারের দক্ষিণ দিকে বাংলালিংক টাওয়ারের সামনে রণহাট্টা গ্রামের ইউনুস আলীর ছেলে ইসাহাক আলী ওরফে বাবু তার পথ আটকিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে।

এ সময় ঐ ছাত্রী নিজের ইজ্জত বাঁচাতে চিৎকার দিলে বাবু দৌড়ে পালিয়ে যায়। বাড়ি গিয়ে ঐ ছাত্রী তার বাবা-মাকে ঘটনার সম্পর্কে অবহিত করেন।

ছাত্রীর পরিবারের লোকজন মঙ্গলবার বিকেলে বাবুকে আটক করে ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে জমা দেয়। সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফজলুল রহমান বিশ্বাস থানায় খবর দিলে পুলিশ ইসাহাক আলী ওরফে বাবুকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

মঙ্গল রাত্রে ছাত্রীর বাবা জাহঙ্গীর আলম থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে থানা পুলিশ ইসাহাক আলী ওরফে বাবুকে শিশু ও নারী নির্যাতন আইনের ৯/(৪)(খ) ধারায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে বুধবার জেল হাজতে প্রেরণ করেন।

হরিপুর থানা ওসি আকতারুজ্জামান প্রধান বলেন উপজেলার পাহাড়গাঁও গ্রামের জাহাঙ্গীর আলম নামে এক ব্যক্তির অভিযোগে প্রেক্ষিতে শিশু ও নারী নির্যাতন আইনের ৯/(৪)(খ) ধারায় মামলা রজু করে ইসাহাক আলী ওরফে বাবুকে নামে এক যুবককে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য