Nawabgonj Mapনবাবগঞ্জ (দিনাজপুর)প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে জমির মালিক ও ইটের পাকা ঘরবাড়ি থাকা ব্যাক্তিকে ভূয়া ভুমিহীন বানিয়ে উপজেলা সরকারি খাস জমি বন্দোবস্ত নেওয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা গেছে উপজেলার ৩নং গোলাপগঞ্জ ইউনিয়নের ফতেপুর মাড়াষ গ্রামের দিন মজুর দফিল উদ্দিনের পুত্র মোঃ হাফিজুর রহমান জানান একই গ্রামের মৃত এমাজ উদ্দিনের পুত্র এনামুল হক ও তার স্ত্রী রহিমা বিবি সরকারি কৃষি খাস জমি বন্দোবস্ত নেওয়ার বিধিমালাকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য ও হরিল্যাখুর তহশিলদার কে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে ম্যানেজ করে ভূয়া ভূমিহীন  XII/৪৫/২০১৪-১৫ইং নং বন্দোবস্ত নথিভুক্ত করেন ।

বন্দোবস্ত গ্রহন কারী এনামুল হক ও তার স্ত্রী রহিমা বিবির নামে ফতেপুর মাড়াষ মৌজায় ১ একর ১২ শতাংশ জমি ও ইটের ঘরবাড়ি রয়েছে। বন্দোবস্ত নেওয়া জমি এনামুলের দখলেও নেই। উপজেলা সহকারী (ভূমি)অফিসের সার্ভেয়ার নাসরিন জানান সরকারী খাস জমি বন্দোবস্ত পেতে হলে আবেদন কারীকে অবশ্যাই ভুমিহীন ব্যাক্তি হতে হবে এবং যে তফসীল বণিত জমি বন্দোবস্ত এর জন্য আবেদন করবে তা স্থানীয় ওই ইউনিয়নের তহশীলদার কর্তৃক জমি আবেদনকারীর দখলে আছে মর্মে প্রত্যয়নের প্রতিবেদন লাগবে। অথচ গোলাপগঞ্জ ইউনিয়নের তহশিল দার অবৈধ অর্থে প্রভাবিত হয়ে ভূয়া তদন্ত করে এনামুলের পক্ষে দখল স্বত্ব প্রতিবেদন দাখিল করেছ বলে ভূমিহীন হাফিজুর রহমান জানান। এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে ওই জমিটি প্রকৃত ভূমিহীন হাফিজুর রহমানের দখলে রয়েছে।

এ বিষয়ে তহশীল দার রতন সেন এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান ভূমিহীন নিবার্চন করবে সংশ্লিষ্ট আবেদন কারী ব্যাক্তির ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য, ইউপি চেয়ারম্যান ও তাদের নিকট থেকে ভূমিহীনের সুপারিশ নিতে হবে। এ বিষয়ে ফতেপুর মাড়াষ গ্রামের ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ জেকের আলী জানান এনামুল কে ভূমিহীনের সুপারিশ করেছি এটা সত্য আমি শূনেছি সে তার শাশুরির নিকট থেকে জমি পেয়েছে  সমস্যা নাই। এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ রওশন আলী জানান ভূমিহীন ব্যাক্তির সুপারিশ দিতে টাকা নেই না ।

এদিকে বন্দোবস্ত পাওয়া নথি বাতিলের দাবীতে ভূমিহীন হাফিজুর রহমান দিনাজপুর জেলা প্রশাসক বরাবরে অভিযোগ দাখিল করেন । এর প্রেক্ষিতে গত ১১/০৮/২০১৫ইং তারিখে রিভিনিউ ডিপুটি কালেক্টর মোঃ তোফাজ্জল হোসেন স্বাক্ষরিত এক পত্রে উল্লেখ করা হয়েছে  ফতেপুর মাড়াষ গ্রামের হাফিজুর রহমান কর্তৃক উপজেলা ভুমি অফিস নবাবগঞ্জ ,দিনাজপুরের XII/৪৫/২০১৪-১৫ইং নথি ভুক্ত ব্যাক্তি ভূমিহীন নয় এবং তার নামে ১একর ১২ শতাংশ জমি রয়েছে মর্মে উল্লেখ করে। উক্ত বন্দোবস্ত  প্রস্তাব অনুমোদন না করার জন্য এ কার্যলয়ে একখানা আবেদন দাখিল করেন ।

আবেদনে অভিযুক্ত   XII/৪৫/২০১৪-১৫ইং নং নথি জেলা কৃষি খাস জমি ব্যবস্থাপনা ও বন্দোবস্ত কমিটির জুন ২০১৫ইং সনের সভায় অনুমোদনান্তে পরবর্তী কার্যক্রম গ্রহনের জন্য এ কার্যলয়ের ২৯/০৭/১৫ইং খ্রিঃ তারিখের ১৮০(৩)নং স্মারকে তার বরাবরে প্রেরণ করা হয়েছে। এমতাবস্থায় অভিযোগ কারীর দাখিল কৃত আবেদন খানা এর সাথে প্রেরণ করা  হয়েছে। আবেদনে বর্ণিত অভিযোগ বিষয়ে তদন্ত সাপেক্ষে সত্যতা পাওয়া গেলে প্রস্তাবিত নথি বাতিলের নিমিত্তে প্রস্তাব প্রেরণের নির্দেশ ক্রমে অনুরোধ করা হল। এ বিষয়ে নবাবগঞ্জ উপজেলা সহকারী (ভূমি)অফিসে যোগাযোগ করা হলে সার্ভেয়ার নাসরিন জানান পত্র পেয়েছি তদন্তের জন্য উভয় পক্ষকে নোটিশ করেছি সত্যত্যা পেলেই কর্তৃপক্ষের নিকট অভিয়োগ দাখিল করা হবে।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য