SAM_3807 copyকাশী কুমার দাস ॥ বাংলাদেশ টেবিল টেনিস ফেডারেশনের সভাপতি মোঃ আবদুল করিম বলেছেন প্রতিনিয়ত মানুষ যান্ত্রিকে রূপান্তর হচ্ছে। হারিয়ে যাচ্ছে খেলার মান। শারীরিক কষরত চর্চা কমে যাওয়ার কারণে শরীরে জটিল রোগ প্রবেশ করছে। এ থেকে পরিত্রাণ পেতে খেলাধুলার বিকল্প নাই। টেবিল টেনিস হচ্ছে ইনডোর গেমস্। ইনডোর গেমস্ হিসেবে টেবিল টেনিস শারীরিক ও মানসিক বিকাশ ঘটায়।

রোববার দিনাজপুর জিমন্যাসিয়ামে বাংলাদেশ টেবিল টেনিস ফেডারেশনের ব্যবস্থাপনায় জেলা ক্রীড়া সংস্থা দিনাজপুরের আয়োজনে এবং সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার এন্ড কমার্স ব্যাংক লিমিটেড-এর পৃষ্ঠপোষকতায় সাউথ বাংলা লিমিটেড তৃতীয় জাতীয় জুনিয়র টেবিল টেনিস প্রতিযোগিতা-২০১৫’র উদ্বোধন করতে গিয়ে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথাগুলো বলেন।

দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলমের সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সুব্রত মজুমদার ডলার। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার মোঃ রুহুল আমিন, সাউথ বাংলা ব্যাংক লিমিটেড -এর এ্যাসিসটেন্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট মোঃ সফিউল আজম, বাংলাদেশ টেবিল টেনিস ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক খন্দকার হাসান মুনীর।

শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আবু রায়হান মিয়া, টুর্ণামেন্ট কমিটির সদস্য সচিব মোঃ আনোয়ার কবীর বাবু, ফেডারেশনের কোষাধ্যক্ষ তাজুদ্দিন পাপ্পু, দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি চিত্ত ঘোষ, মহিলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদিকা জিনাত আরা চৌধুরী মিলি ও ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি মোঃ আজিজুর রহমান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি মোকাদ্দেম আনোয়ার ওয়ান্ডার, সহ-সাধারন সম্পাদক মোঃ আসলাম হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান পাটোয়ারী, কোষাধ্যক্ষ জাহেদী পারভেজ অপূর্ব, নির্বাহী সদস্য মোঃ আনিসুর রহমান আনিস, মোঃ মোস্তাক আহাম্মেদ, আনিস হোসেন দুলাল, অরুন সরকার ও রংপুর বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি মোকাদ্দেস হোসেন চৌধুরী পাপ্পু।

সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন সিরাজুম মুনিরা ও সৈয়দ আজাদুর রহমান বিপু। শেষে প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিদ্বয় বেলুন উড়িয়ে ৩য় জাতীয় জুনিয়র টেবিল টেনিস প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন। উক্ত প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের ৩২টি জেলা হতে ১৭০ জন বালক-বালিকা অংশগ্রহণ করছে।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য