ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা পর্যায়ের বৈঠকের আগেই গৃহবন্দি করা হয় কাশ্মিরের হুররিয়াত নেতাদের। যদিও পরে নাটকীয়ভাবে ঘণ্টা দুয়েকের মধ্যে তাদের মুক্ত করে দেয়া হয়।

ভারত-পাক বৈঠকের আগেই হুররিয়াত নেতাদের গৃহবন্দিআগামী ২৩ আগস্ট ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভালের সঙ্গে পাকিস্তানের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা সারতাজ আজিজের সঙ্গে দিল্লিতে উচ্চস্তরীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। তার আগেই  নয়াদিল্লিতে অবস্থিত পাকিস্তান দূতাবাসের পক্ষ থেকে হুররিয়াত নেতাদের আমন্ত্রণ জানানো হয় সারতাজ আজিজের সঙ্গে বৈঠকে বসার জন্য। এর পর থেকেই কূটনৈতিক মহলে টানাপোড়েন সৃষ্টি হয়। ভারত এ ঘটনায় খুব অসন্তুষ্ট হয়।

হুররিয়াত নেতা সাইয়্যেদ আলী শাহ গিলানী এবং মীরওয়াইজ ওমর ফারুককে গৃহবন্দি করার পাশাপাশি আজ (বৃহস্পতিবার) সকালে  জেকেএলএফ নেতা ইয়াসীন মালিককে গ্রেফতার করা হয়। শ্রীনগরে তাদের বাড়ির সামনে পুলিশ ব্যারিকেড সৃষ্টি করে রাখে, যাতে তারা বাইরে বেরোতে না পারেন। ইয়াসীন মালিককে গ্রেফতারের পরে তাকে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

আজ (বৃহস্পতিবার) জম্মু-কাশ্মিরের মুখ্যমন্ত্রী মুফতি সরকারের এ রকম পদক্ষেপের তীব্র সমালোচনা করেন রাজ্যের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আব্দুল্লাহ। যদিও কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই  গৃহবন্দি করা হুররিয়াত নেতাদের নাটকীয়ভাবে মুক্তি দেয়া হয়। ছেড়ে দেয়া হয় জেকেএলএফ নেতা ইয়াসীন মালিককেও। যদিও কোনো কোনো গণমাধ্যমে বলা হচ্ছে গিলানী ছাড়া অন্য নেতাদের মুক্তি দেয়া হয়েছে।

আগামী ২৩-২৪ আগস্ট ভারতের নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল এবং পাকিস্তানের নিরাপত্তা উপদেষ্টা সারতাজ আজিজের সঙ্গে দিল্লিতে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা অনুষ্ঠিত হবে। পাকিস্তানের ডেপুটি হাই কমিশনার মনসুর আহমেদ খান ২৩ আগস্ট সন্ধ্যায় কাশ্মিরি নেতাদের আমন্ত্রণ জানান সারতাজ আজিজের সঙ্গে বৈঠকে বসার জন্য।

সূত্রে প্রকাশ, জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা পর্যায়ের বৈঠকের পরে হুররিয়াত নেতারা পাকিস্তানি হাইকমিশনারের আমন্ত্রণে সে দেশের জাতীয় নিরপত্তা উপদেষ্টা সারতাজ আজিজের সঙ্গে ডিনারে মিলিত হতে পারেন।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য