Dhanফুলবাড়ী সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে আমন ধার রোপনের মৌসুমের শেষে আমন চাষের লক্ষ্যমাত্রা পুরন না হওয়ায় আমন ধান চাষ কম হওয়ার আশংকা  করছেন চাষীরা।

উপজেলা কুষি দপ্তরের হিসেব মতে চলতি মৌসুমে ফুলবাড়ী উপজেলায় আমন চাষের যে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয়েছিল তা থেকে এখনো পর্যন্ত প্রায় সোয়া ২ হাজার হেক্টর জমিতে আমন চাষ করা হয়নি। আমন চাষের সময় এখনো শেষ হয়নি তাই কৃষি দপ্তর অবশ্য লক্ষ্যমাত্রা পুরনের আশা করছে।

দিনাজুপর জেলার বৃহৎ এবং প্রধান চাষাবাদ আমন ধান চাষাবাদ। কৃষিনির্ভর ফুলবাড়ী উপজেলার সব ধরনের জমিতে প্রধান অর্থকরী ফসল হিসেবে আমন ধানের চাষাবাদ রয়েছে শীর্ষে। প্রকৃতির উপর নির্ভরশীল এই আমন চাষ বর্ষাকালের চাষাবাদ হিসেবে চলে আসছে দীর্ঘকাল থেকে। তবে আবহাওয়া পরিবর্তনের কারনে এই অঞ্চলেল চাষীরা আমন ধান চাষাবাদের মৌসুমকে কিছুটা এগিয়ে এনেছেন। প্রাটর এবং পাওয়ার ট্রিলারের মাধ্যমে জমি রোপন যোগ্য করে প্রায় পুরোদমে আমন রোপন কাজ শুরু হয় আষাঢ় মাসের মাঝামাঝি  সময় থেকে।

গত বোরো মৌসুমে বোরোর বাম্পার ফলন হলেও ধানের দাম খুশী করতে পারেনি চাষীদের। তার পরেও প্রধান এবং বৃহৎ অর্থকরী এই ফসল আমন ধান চাষবাদে চাষীদের আগ্রহে ভাটা পড়েনি। চলতি আমন চাষ মৌসুমে অনেক চাষী বীজ চারাকে তুলে অন্য জমিতে রোপন করে সেই বড় এবং মজবুত (স্থানীয় ভাষায় দোগছি) চারা রোপন করেছেন। অনেক উচু জমিতে পানি না থাকায় আমন রোপনে কিছুটা বিঘœ সৃষ্টি হলেও অধিকাংশ আমন রোপনযোগ্য জমিতে ধান রোপন প্রায় শেষ হয়েছে।

উপজেলা কুষি দপ্তরের সুত্র মতে, চলতি মৌসুমে ফুলবাড়ী উপজেলায় আমন ধান চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয় ১৬ হাজার ৮৩৪ হেক্টর। কিন্তু বুধবার পর্যন্ত আামন চাষ হয়েছে ১৪ হাজার ৫২৫ হেক্টর জমিতে । তবে কৃষি দপ্তর আমনের লক্ষ্যমাত্রা পুরনে আশাবাদি বলে জানিয়েছে।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য