DSC_6277 copyসাহেব, দিনাজপুরঃ শেষ হয়েও যেন শেষ হতে চাচ্ছে না দৈনিক করতোয়ার ৪০তম বর্ষ উপলক্ষে দিনাজপুরের বর্ণাঢ্য উৎসব। দৈনিক করতোয়ার পাঠক পাঠিকা ও শুভাকাঙ্খীরা উৎসবকে আনন্দমুখর করে তুলতে এখনো ব্যস্ত ।

দৈনিক করতোয়ার সম্পাদক মোজ্জাম্মেল হকের সভাপতিত্বে গত ০২ আগষ্ট দিনাজপুরে দৈনিক করতোয়ার বর্ষবরণের বর্ণাঢ্য আয়োজন করা হয়। ওই অনুষ্ঠানে চিত্রাংকন ও যেমন খুশি তেমন সাজো প্রতিযোগিতায় বিজয়ী ও অংশগ্রহনকারীদের ক্রেষ্ট ও পুরষ্কার দেয়া হয়।

অনুপস্থিতিদের পুরষ্কার ও সনদপত্র দিনাজপুরে দৈনিক করতোয়া অফিস থেকে সংগ্রহ করার জন্য ঘোষনা দেয়া হয়। কিন্তু নাছোরবান্দা বিজয়ী ও সনদপত্র সংগ্রহকারীরা উৎসব ছাড়া পুরষ্কার নিতে রাজি নয়।

তাই দৈনিক করতোয়ার সম্পাদক মোজাম্মেল হকের পক্ষে দৈনিক করতোয়া দিনাজপুর জেলা প্রতিনিধি শাহারিয়ার শহিদ মাহাবুব হিরু দিনাজপুর অফিসে আনন্দমুখর পরিবেশে বিজয়ীদের পুরষ্কার ও অংশগ্রহনকারীদের সনদপত্র বিতরনের আয়োজন করেন। ফেষ্ঠুন, মুকুট ও ব্যানার ঝুলিয়ে ফটো সেশনের মধ্যে বিজয়ীদের পুরষ্কার  ও অংশগ্রহনকারীদের সনদপত্র দেয়া হয়।
DSC_6307 copy
দিনাজপুর কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ একেএম খালেকুজ্জামান পিপিএম বলেন, এই পত্রিকা নির্যাতিত, নিপীড়িত মানুষের সহায়ক শক্তি, স্বাধীনতা স্বপক্ষের শক্তিকে বলিয়ান করতে এই পত্রিকার গ্রহনযোগ্যতা এখন প্রয়োজন হয়ে দাড়িয়েছে। তাই করতোয়ার বর্ষবরন যুগ যুগ ধরে চলবে।

অভিভাবক শাহ্ মোঃ রেজওয়ান-উর-রহমান পলাশ বলেন, দৈনিক করতোয়া দিনাজপুর মানুষের মনে স্থান করে নিয়েছে। একদিনেই দৈনিক করতোয়ার উৎসব শেষ হয়ে যাবে না। এই উৎসব দৈনিক করতোয়া যতদিন বেঁচে থাকবে ততদিন চলবে। শহর মহিলা আওয়ামী লীগের যুগ্ন আহবায়ক সেহেলী আক্তার ছবি বলেন, দৈনিক করতোয়ার মানুষের মনকে নাড়া দিয়েছে।

উত্তরাঞ্চলের প্রাণের পত্রিকা করতোয়া। শহর মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী আইরিন লতিফ বলেন, দৈনিক করতোয়া মাটি ও মানুষের কথা বলে। এই পত্রিকার সংস্পর্শে আসলেই সঠিক সিদ্ধান্ত নেয়া যায়। ফটো সাংবাদিক সাহেব আলী বলেন, অসংখ্য ফটো তুলেছি কিন্তু দৈনিক করতোয়ার ৪০তম বর্ষ পর্দাপনে আনন্দ উৎসবমুখর পরিবেশে ছবি তুলেও যেন  ছবি তুলার সখ মিটছে না।
DSC_6310 copy
৪০ দেখলাম ১০০তম বর্ষ দেখার অপেক্ষায় রইলাম। বিজয়ী ও সনদপত্র গ্রহনকারীদের এই অনুষ্ঠানে অভিভাবক সাঈদ সালাম চৌধুরী (বাবু), নির্মল কুমার রায়, ডলি শাহারিয়ার, হামিদ সাবাহ, রীতা দাস, যুব লীগ নেতা আশরাফুজ্জামান জুয়েল, মহিলা নেত্রী আসমা খাতুন বেবী, শাহানাজ বেগম শিউলীসহ অসংখ্য অভিভাবক উপস্থিত ছিলেন। সার্বিক তত্বাবধানে ছিলেন  সাফি সাবনাজ।

সবশেষে অতিথিবৃন্দরা ‘‘প্রতিদিন খবর নিয়ে আসে করতোয়ার সেই সংবাদ, ৪০ বছরে পা রেখেছে করতোয়াকে ধন্যবাদ’’ এ গানটি গুনগুন করতে করতে বাড়ি ফিরে যায় ।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য