BROKEN ROADSভূরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রামের সীমান্তবর্তী ভূরুঙ্গামারী উপজেলার প্রধান প্রধান সড়কগুলো দীর্ঘদিন যাবৎ সংস্কারের অভাবে যান চলাচলের অনুপযুক্ত হয়ে পড়ছে ।

কোন কোন সড়কে হেরিং বন্ড ধ্বস আবার কোন কোন সড়কে কার্পেটিং উঠে গিয়ে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে । বর্তমানে  সড়কগুলোর এমন বেহাল দশায় জনদুর্ভোগ যেন চরম আকার ধারন করেছে। ভাঙ্গা-গর্ত আর কাদাপানিতে সয়লাব উপজেলার এসব গুরত্বপূর্ন সড়কে পথ চলতে পথচারীদের ভোগান্তির যেন শেষ নেই ।

বিশেষ করে কোন কোন রাস্তায় স্কুল- মাদ্রাসা- কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের এক হাতে বই আর অন্য হাতে পায়ের সেন্ডেল নিয়ে কাদাজল মাড়িয়ে নির্দিষ্ট শিক্ষাঙ্গনের উদ্দেশ্যে হেটে পথ পাড়ি দেয়ার দৃশ্য খুবই বিব্রতকর ।

সদরের বাগভান্ডার রোড থেকে মাদার ক্লিনিক হয়ে  উপজেলা হাসপাতাল পর্যন্ত বিকল্প সংযোগ সড়কটিতে জায়গায় জায়গায় গর্ত আর সর্বদা এক হাটু কাদাপানি জমে থাকায় পথচলার কোন উপায় নেই । অথচ সাদ্দাম মোড়ে পাটহাটী আর জ্যামের কারনে ঝুঁকি নিয়ে এ সড়ক দিযেই স্বাস্থ্যসেবা গ্রহনেচ্ছু মানুষকে কষ্ট স্বীকার করে হাসপাতালে যেতে হয় । একই অবস্থা সুনীলের মোড় হতে কিশলয় বিদ্যা নিকেতন পর্যন্ত সড়কটিতে ।

সাম্প্রতিক ভারী বর্ষনে সড়কটির হেরিং বন্ড ধ্বসে গিয়ে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে আছে ।  বাসষ্ট্যান্ড টু সোনাহাট স্থলবন্দর সড়কটিরও একই অবস্থা । নতুন সড়ক নির্মান কিংবা সড়ক মেরামত না করেই গত বছর স্থলবন্দরের কার্যক্রম চালু করায় এ সড়কটিতে যান চলাচল বেড়ে গিয়েছে বহুগুন ।

ফলে কার্পেটিং উঠে গিয়ে জায়গায় জায়গায় ভাঙ্গা আর গর্তের কারনে ব্যবসায়ীক গুরুত্বপূর্ন  এই সড়কটিতে প্রতিনিয়তই ঘটছে দুর্ঘটনা। কিছুদিন পূর্বেই স্থলবন্দর সড়কে পথ চলতে গিয়ে ভারতীয় লোড ট্রাকের নীচে চাপা পড়ে মোহির উদ্দীন (৪৫) নামক স্থানীয় এক ব্যক্তি প্রান হারান ।

সদরে  জামতলা বজলু হাজীর দোকান থেকে মহিলা ডিগ্রী কলেজ পর্যন্ত সড়কে সামান্য বৃষ্টি হলেই শিক্ষক- শিক্ষার্থীসহ স্থানীয় বাসিন্দাদের পায়ের সেন্ডেল হাতে নিয়ে পথচলতে দেখা যায় । খান মোড় ( ভূরুঙ্গামারী সাংবাদিক ফোরাম কার্যালয় ) থেকে সরকারী প্রাথমিক বালিকা বিদ্যালয় এবং  এন.ইউ. পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে যাওয়ার রাস্তা পয়নিষ্কাশনের ড্রেন ধ্বসের কারনে বেশ কিছুদিন যাবৎ প্রায় চলাচল অনুপযোগী  হয়ে আছে ।

উপরোক্ত দু’টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত মেয়েরা ড্রেনের নোংরা পানির দুর্গন্ধ উপেক্ষা করেই ভাঙ্গা সড়কটি ব্যবহার করতে বাধ্য হচ্ছে।

জন চলাচলে উপজেলাবাসীর এ ধরনের নাজেহাল অবস্থার আরও কিছু বাস্তব চিত্র দেখা যাবে সদরের নবনির্মিত মুক্তিযোদ্ধা সড়ক , উপজেলা জাতীয় পার্টির কার্যালয় হতে সাদ্দাম মোড় হয়ে আয়শা সিদ্দীকা বালিকা হাফেজিয়া মাদ্রাসা পর্যন্ত সড়ক , ডিগ্রী কলেজ থেকে বাংলালিংক টাওয়ার হয়ে বাসষ্ট্যান্ড সংযোগ সড়ক , সিনিয়র মাদ্রাসা মোড় হতে পাইলট হাইস্কুল সংযোগ সড়ক , বাসষ্ট্যান্ড টু আন্ধারিঝাড় সড়ক , জয়মনিরহাট টু সিংঝার সড়ক , থানাঘাট টু বাঁশজানী সড়ক , বাগভান্ডার বিওপি থেকে থানাঘাট সংযোগ সড়ক , মঈদাম কলেজ টু মঈদাম উচ্চ বিদ্যালয় সড়ক , বাগভান্ডার নো ম্যানস ল্যন্ডস হতে পূর্ব ভোটহাট মোড়ের নূরুল ইসলামের বাড়ী  হয়ে ভোটহাট বাজার পর্যন্ত সড়ক , মানিক কাজী ঘাট হতে পূর্ব ভোটহাট মোড়ের নূরুল ইসলামের বাড়ী পর্যন্ত সড়ক , গছিডাঙ্গা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় হতে ডিপেরহাট পর্যন্ত সড়ক , তালতলা হতে বর্তমান সংসদ সদস্যের বাড়ী  সংলগ্ন মক্তব পর্যন্ত  সড়ক এবং  কালাচাঁন মোড় হতে উপমহাদেশ খ্যাত রাজনীতিবিদ মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানীর বাড়ী পর্যন্ত সড়কে ।

বাউসমারী গ্রামের বাসিন্দা ও উত্তর ধরলার বিশিষ্ট সাহিত্যিক কাজী ইমদাদুল হক বলেন , ‘ জয়মনিরহাট থেকে সিংঝার পর্যন্ত সড়কটির বর্তমান অবস্থা যে কতটা ভয়াবহ তা ভূক্তভোগী ছাড়া অন্য কেউ জানবে না ’। ভূরুঙ্গামারী মহিলা ডিগ্রী মহাবিদ্যালয়ের প্রভাষক শাহ আলম ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন , ‘ যে কোন নির্বাচনের পূর্বেই আমরা জনকল্যানে প্রার্থীদের প্রতিশ্রুতির ফুরঝুরি দেখতে পাই । এর সামান্য পরিমান বাস্তবায়ন ঘটলেও জনগনের সমস্যা অনেকটাই লাঘব হতো বলে আমার বিশ্বাস। কিন্তু বাস্তবে সেটা দেখা যায় না ।

মাননীয় সংসদ সদস্য এলাকায় উন্নয়নমূলক অনেক কাজ করলেও এই সময়ে তিনি সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উচিত যোগাযোগ ক্ষেত্রে এলাকার চরম জন দুর্ভোগ লাঘবে অনতিবিলম্বে ক্ষতিগ্রস্থ সড়কগুলো মেরামতের তড়িৎ ব্যবস্থা গ্রহন করা ।’  উপজেলার প্রবীন সাংবাদিক মোক্তার হোসেন সরকার বলেন , ‘ মাওলানা ভাসানীর স্মৃতিধন্য ভাসানী নগরের এই বাড়ীটি উপজেলাবাসীর জন্য একটি মর্যাদার বিষয় ।

কৌতুহলী দর্শনার্থীরা প্রতিনিয়তই বাড়ীটি দেখার জন্য অনেক দূর-দুরান্ত থেকে এখানে আসে । কিন্তু কাঁলাচান মোড় থেকে ভাসানীর বাড়ী পর্যন্ত কর্দমাক্ত কাঁচা ভাঙ্গা রাস্তায় কেউ দ্বিতীয়বার আসবে বলে মনে হয় না ।  উপমহাদেশ জুড়ে যার খ্যাতি সেই বিখ্যাত রাজনৈতিক গুরু মাওলানা ভাসানীর বাড়ীর উভয় পাশের সামান্য সংযোগ সড়কটুকু আন্তরিকতা আর কৃতজ্ঞতার সাথে সম্মিলিতভাবে আমাদের সুন্দর করা উচিৎ।’

দল-মত নির্বিশেষে ভূক্তভোগী উপজেলাবাসী ক্ষতিগ্রস্থ এসব রাস্তাঘাটে চলাচলের কষ্ট আর দুর্ভোগ লাঘবে সংশ্লিষ্ট সকল উর্ধ্বতন মহলের জোরালো আন্তরিক প্রচেষ্টার স্বপ্নীল বাস্তবায়ন প্রত্যাশা করে ।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য