1+libyaআন্তর্জাতিক ডেস্ক: ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিতে গিয়ে লিবীয় উপকূলের অদূরে বুধবার যাত্রীবোঝাই মাছ ধরার নৌকা ডুবে ২’শরও বেশি অভিবাসী মারা গেছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

আর্ন্তজাতিক অভিবাসন সংস্থা মঙ্গলবার বলেছে, এ বছর বিপদসংকুল নৌপথে ইউরোপে পাড়ি জমাতে গিয়ে দুই হাজারেরও বেশি অভিবাসন প্রত্যাশী দুর্ঘটনায় মারা গেছে। এরই ধারাবাহিকতায় সর্বশেষ ঘটনাটি ঘটলো। এপ্রিলে লিবীয় উপকূলে ৮শ অভিবাসী মারা যাওয়ার পর এটিই সবচেয়ে ভয়াবহ দুর্ঘটনা বলে মনে করা হচ্ছে।

৬শরও বেশি আরোহী নিয়ে মাছ ধরা নৌকাটি লিবীয় উপকূল থেকে ১৫ নটিক্যাল মাইল দূরে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় পড়ে এবং ডুবে যায়। উদ্ধার অভিযান চালাতে সাতটি জাহাজ ও দুটি হেলিকপ্টার দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে। সিসিলি দ্বীপের উপকূলরক্ষীরা এ উদ্ধার অভিযান চালায়। তাদের মুখপাত্র ফিলিপ্পো মারিনি জানান, এ পর্যন্ত ৪শ জনকে জীবিত এবং ২৫ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

ইতালিতে জাতিসংঘ শরণার্থী সংস্থার মুখপাত্র বার্তা সংস্থা এএফপিকে জানান, নৌকাটি উল্টে যাওয়ার পরপরই ডুবে যায়। কারণ এটি ইস্পাতের তৈরি ছিল।

আর্ন্তজাতিক অভিবাসী সংস্থা আরো বলছে, অধিকাংশ অভিবাসীই নড়বড়ে নৌকায় করে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দেয় এবং তারা ইতালি কিংবা গ্রিসে এসে পৌঁছায়। ভূমধ্যসাগরের বিপদসংকুল পথে লিবিয়া থেকে ইতালি পৌঁছাতে ১ হাজার ৯শ ৩০ জন এবং গ্রিসে পৌঁছাতে গিয়ে ৬০ জন মারা গেছে।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য