7+britainআন্তর্জাতিক ডেস্ক: ফ্রান্সের সীমান্ত শহর ক্যালাইসে স্থাপিত শরণার্থী শিবির থেকে মানুষ ব্রিটেনের দিকে পাড়ি জমাতে ভীষণভাবে তৎপর হয়েছে। চলতি সপ্তাহেই হাজার হাজার অভিবাসনপ্রত্যাশী ব্রিটেনের মাটিতে পা রাখার জন্যে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ফরাসী সীমান্ত পেরোতে চাইছে। ক্যালাইস-শরণার্থীদের একাংশ ব্রিটেনে প্রবেশ করতে সমর্থও হয়েছে। দুই দেশই এ ইস্যুকে দ্রুত সমাধানের জন্যে অগ্রাধিকার দিতে চান। এ মর্মে এক লিখিত বক্তব্যে সাক্ষর করেছেন ফ্রান্স ও ব্রিটেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী যথাক্রমে বার্নার্দ সেজনেভ ও তেরেসা মে।

ফরাসী পত্রিকা দ্যু দিমঁশে ও ব্রিটেনের টেলিগ্রাফ যুগ্মভাবে ঐ লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেছে। বার্নার্দ সেজনেভ বলেন, বিদ্যমান পরিস্থিতি সামলানোটাই এ মুহূর্তে সবচেয়ে বড় লক্ষ্য, ব্রিটেন ও ফ্রান্স দুই দেশের কাছেই। আমরা এ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে দায়বদ্ধ এবং একযোগেই তা সমাধা করবো।

বক্তদ্বয় এ লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করার একদিন আগে ইউরো টানেলের অনুবর্তী ব্রিটন সীমান্তশহর ফোকেস্টোনে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের পক্ষে-বিপক্ষে র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয় এবং দুই পক্ষেরই সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। ইউরোটানেলে নিরাপত্তাব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। অভিবাসনপ্রত্যাশীদের ওপর ব্যাপকভাবে চড়াও হয়েছে পুলিশ।

ক্যালাইস একটি সমুদ্রবর্তী শহর যেখানে ফ্রান্সে আগত সিরীয়, ইরাকী, সুদানীয় ও অপরাপর রাষ্ট্র থেকে পালিয়ে আসা শরণকামী মানুষকে আশ্রয় দেওয়া হয়। বর্তমানে ওখানকার শরণার্থীসংখ্যা শিবিরের ধারণক্ষমতা অতিক্রম করেছে।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য